টঙ্গীবাড়ীতে গাছ কেটে সীমানা প্রাচীর নির্মাণের ঘটনায় ব্যাবস্থা নিচ্ছে না বন বিভাগ

টঙ্গীবাড়ীতে-গাছ-কেটে-সীমানা-প্রাচীর

মোঃ জাফর মিয়া, ২৩ জুন ২০১৬ (মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম) : মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার কামারখাড়া বাজারের ব্রীজের পশ্চিম পাশের মফি হাওলাদার ৪টি সরকারি গাছ কেটে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ ঘটনায় মামলা নিচ্ছে না। এ বিষয়ে বন কর্মকর্তা ও উপকারভোগীর পরস্পর বিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে।

টঙ্গীবাড়ী উপজেলা বন কর্মকর্তা হুমায়ূন কবির বলেন, উপকারভোগী কেউ অভিযোগ করেনি বলে মামলা করা হয়নি। কিন্তু  উপকারভোগী কামাল বেপারী জানান, আমি বন কর্মকর্তাকে বিষয়টি একাধিকবার জানিয়েছি সে কোন ব্যাবস্থা নেয়নি।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, বন কর্মকর্তা উৎকোচ খেয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে।

সরেজমিনে সোমবার দুপুরে গিয়ে দেখা যায়, কামারখাড়া হাসাইল সংযোগ সড়কের কামারখাড়া ব্রীজ সংলগ্ন মফি হাওলাদার রাস্তার গাছ কেটে রাস্তার অংশ দখল করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করছেন। ইতিমধ্যে ওই প্রাচীর নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হওয়ার পথে।

এ ব্যাপারে মফি হালদার এর সাথে কথা হলে ওই প্রাচীর কে  নির্মাণ করছে আমি জানিনা বলে সাংবাদিকদের দেখে পালিয়ে যান।

এর আগে কোন অনুমতি না নিয়ে ওই স্থানে দেড় লক্ষাধিক টাকা মূল্যের ৪ টি সরকারি একাশিয়া গাছ কেটে সিমানা প্রাচীর নির্মাণ করে মফি হাওলাদার।

এ ঘটনায় স্থানীয় জাবু মেম্বারের ছেলে কামাল বেপারী, মফি হাওলাদার ও তার ছেলে  হামিদ হাওলাদার ও বাচ্চু হাওলাদারকে আসামী করে টঙ্গীবাড়ী  থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়।

 অভিযোগের আলোকে পুলিশ নির্মাণাধীন ওই বাড়ির পাশের পুকুর থেকে  কর্তনকৃত ৪টি গাছ উদ্ধার করলেও অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়নি উপজেলা বন কর্মকর্তা।

এ ব্যাপারী টঙ্গীবাড়ী থানা ওসি আলমগীর হোসাইন জানান, স্থানীয় চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন হালদার আমার কাছে আভিযোগ করলে আমি গাছগুলো উদ্ধার করি। কিন্তু বন-কর্মকর্তাকে একাধিকবার বিষয়টি জানানোর পরেও সে কোন ব্যাবস্থা নেয়নি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here