সুমন ইসলাম-এর দুটি কবিতা

Suman Islam-PHOTO_15-7-2016

মেঘে মেঘে হূদ্যতাহীন

আমার বুক ছোঁয়ে ধুমলবতী সিগারেটের ধোঁয়া নির্মেষ শূন্যে মিশে যায়-আমি তখন আমার নিঃশ্বাস উড়ে যাওয়ার ব্যস্ততা দেখি ঘরময়-ঘূর্ণিময়; কী অদ্ভুত বিদীর্ণ ফেনিল,মায়াহীন শ্বাস।

যে রকম দেখি সবার ভালোবাসা আমাকে ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে মেঘে মেঘে হূদ্যতাহীন। হাহাকার-স্তব্ধ আমিও অভিমানে পড়ে থাকি প্রেমহীন।
ভোরের জানালায় টঙ্কারের মতন জ্বলে উঠতে থাকে রৌদ্র সারাদিন ক্রুদ্ধ দৃষ্টি আমাকে ভৎসনা করে ফিরে-অথবা
আমি কোথাও কোনো সুদূর্গম জলাশয়ে সাদা শুভ্র কোমল একটি শাপলাও কুড়িয়ে পাই না।সবখানে যেনো মানুষের স্ততঃআর্বজনা- তবুও খুব স্বজনপ্রিয় সংখ্যক পাখিদের কোলাহলে বেঁচে আছি।

অদ্ভুত পাথরের মেঘ গো তুমি
অদ্ভুত পাথরের মেঘ গো তুমি!প্রদাহ অন্ধকার-রক্তাভ ধূসর জল নিমগ্ন রেখেছো করে আমার যোগলচোখ।অথবা দাঁড়িয়ে আছি জলাভূমির একখন্ড শেওলা মাচানে নিঃসঙ্গ শালিকের ঝাপটানো প্রাচীন বেদনায়:তোমার শরীরে অগণিত তারার মতোন ফোঁটিয়ে দেবো আমার চুম্বন-তিনপ্রহরে তুমি নীলাভ আকাশ হয়ে দাঁড়াবে পাশে।আমি মিশে যাবো শরীরের গন্ধে তোমার।তোমার অগ্নিগর্ভ গন্ধ মোম রৌদ্রের মতন আমাকে পোড়াবে সারাক্ষণ-অতপর বৃষ্টি ডুবা কলাপাতার জোনাকিরা সঙ্গম রাত্রির মতোন তোমাকেই উচ্চারিত করে যাবে বারবার।অথচ তোমার আহবান কোথায় যেনো হারিয়ে গেছে!জোসনাতলা রাতে উধাও নক্ষত্রের মতন হাসিবিহীন তুমি-আমার স্মৃতির ভৈবব-আনন্দ পথে।মুখ ফোঁটে কোনো কথাই বলতে চাওনা!
নিমখুন স্বপ্ন তাকানো ওই চোখ-প্রহরে প্রহরের শূণ্যতা আর শুধু বিরহ-প্রলপন।এখনো কী জনাকীর্ণ সংশয়,বঞ্চিত-গৃহবন্দি হওয়ার ভয়?এখনো কী তোমার চোখ ধূসর মলিন?ভালোবাসার পক্ষাপক্ষ?তবুও ভালোবাসা আসে ইন্দ্রিয় পথে পথে।তোমার ভালোবাসা না পেলে পচে-গলে যাবো মাটির সঙ্গে।বিশ্বাস করো তোমার আলো গন্ধ ছাড়া এক মূহুর্তেও আমি বাঁচতে পারিনা।
লেখক:সম্পাদক,‘পটভূমি’-সাহিত্য শিল্প সাংস্কৃতিক বিষয়ক পত্রিকা।১৫ জুলাই  ২০১৬ 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here