দৌলতগঞ্জ পুরাকীর্তি নিয়ে কবি ফাহিম ফিরোজের সাক্ষাৎকার, সেই স্বর্ণমূর্তিটি কোথায়?

Fahim Photo 2

লোকমান তাজ: ১ আগস্ট ২০১৬ (মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম) : দৌলতগঞ্জের পুরাকীর্তি নিয়ে দীর্ঘ সময় কথা হয় দুই বাংলার প্রখ্যাতকবি, সাহসী লেখক এবং দৈনিক ইনকিলাবের সহ-সম্পাদক ফাহিম ফিরোজের সাথে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন বহুল প্রচারিত ’সাম্প্রতিক দেশকাল’ পত্রিকার সাংবাদিক লোকমান তাজ ।

প্র: দৌলতগঞ্জ প্রতœঢিবির বয়স কত?
উ: ক’দিন আগে প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তরের একটি গুরুত্বপূর্ণ সূত্র জানিয়েছে, ঢিবির বয়স আড়াই হাজার বছরের মত। ঢিবির বয়স নিয়ে তারাও অবাক। আমার প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক নজরুল ইসলামও নাকি বলেছেন বহু আগে একটি বইয়ে দৌলতগঞ্জের ইতিহাস তিন হাজার বছরের পুরাণ- এ কথা তিনি পড়েছেন। কিন্তু ঐ বইটির নাম এখন আর তার মনে নেই।
প্র: লোভী হাবিবুর নাকি তার ভিটির গর্ত খুড়ে কয়েকটি সোনার বাটি এবং চামচ পেয়েছে?
উ: এলাকার কয়েকজন আমাকে একথা বলেছেন। এর মধ্যে নজির মিয়া নামে একজন মুরব্বিও রয়েছেন। হাবিবুরের ছেলেদের দাবি, মাটির দুই হাত নিজ থেকে পলিথিন ও রাজা কনডম পেয়েছে। আমার বক্তব্য, রাজা কনডম এবং পলিথিন এই তো মাত্র সেদিন তৈরি হয়েছে। কিন্তু ভিটির বয়স তো আড়াই হাজার বছর। এতো নিচে পলিথিন এবং কনডম কি করে থাকতে পারে? এদের আইনের আওতায় আনলে প্রকৃত সত্য বের হয়ে আসবে। স্থানীয় কমিটির পক্ষে মৌখিকভাবে থানাকেও জানানো হয়েছে। দেখা যাক শেষে কি হয়।
প্র: সেই সোনার মূর্তি?
উ: জানা যায়, ১৯৯৯ সালের জানুয়ারি মাসে মোহাম্মদ নজির মিয়া (হাসপাতাল পাড়া) তার বাড়ির ভিটায় ১২ ইঞ্চি একটি সোনার মূর্তি পেয়েছিলেন এবং একাধিক সাক্ষীর উপস্থিতিতে এবং সাদা কাগজে সই স্বাক্ষর নিয়ে থানা সেই সময় মূর্তিটি জব্দ করে। এ মূর্তির নিউজ কিছুদিন আগে একটি বড় পত্রিকায় ছাপাও হয়েছে। এ বিষয়ে প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তরের শীর্ষ কর্মকর্তা গোলাম ফেরদৌস জানান, ১৯৬৮ সালের পুরাকীর্তি আইনে এটি পুরাকীর্তি বিভাগে জমা পড়েনি। শুনা যায়, থানা থেকেই নাকি এটি লোপাট হয়েছে।
প্র: এখন করনিয় কি?
উ: সেই সময়ের ওসি এখন আর থানায় নেই। অধিদপ্তরের উচিত এ বিষয় দ্রুত একটি মামলা করা। এতো বড় জালিয়াতি মেনে নেয়া যায় না। কঠোর পরিশ্রমী মোহাম্মদ গোলাম ফেরদৌস কয়েকবার একজন মিডিয়া কর্মী হিসেবে আমাকে মূর্তিটির বিষয়ে ফোনে খোঁজ খবর নিতে বলেন।
প্র: আপনিতো প্রায়ই দৌলতগঞ্জ মিউজিয়ামের প্রয়োজনীয়তার কথা বলেন?
উ: বলা আর বাস্তবায়ন দুটো দু জিনিস।
প্র: তরুণদের বিজয়ের মাধ্যমে প্রথম পর্বের আন্দোলন শেষ। এখন?
উ: দ্বিতীয় পর্বের আন্দোলন চলছে হাবিবুরের বাড়ি ছাড়া অন্যান্য পুরাকীর্তির স্পটগুলো পাহারা দেওয়ার জন্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here