শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুট: আশা ও ভরসা দুই-ই মান্ধাত্মা আমলের সেকালের ফেরী !

download

মামুনুর রশীদ খোকা, ৬ আগস্ট ২০১৬ (মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম) : দেশের দক্ষিনাঞ্চলের প্রবেশদ্বার মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে প্রমত্বা পদ্মায় চলাচল করছে মান্ধাত্মা আমলের ফেরী। নৌরুটে পদ্মা পাড়ি দিতে দক্ষিনাঞ্চলের লাখো যাত্রীর আশা ও ভরসা দুই-ই এখন সেকালের ওই ফেরী। এই নৌরুটে চলাচলরত ফেরীর সংখ্যা ১৮। এ গুলোর বেশীর ভাগই সেকালের তথা চল্লিশ থেকে ষাট দশকের তৈরী।

আর দীর্ঘ দিন ধরে নৌরুটে চলতে চলতে ফেরী গুলো অনেকাংশে দুর্বল হয়ে পড়েছে। পুরনো লক্কর-ঝক্কর এ সব ফেরীর উপর ভরসা করেই প্রমত্বা পদ্মা পাড়ি দিচ্ছে দক্ষিনাঞ্চলের যাত্রীরা। একই সঙ্গে ডাম্প ফেরী চলাচলের সাহায্যকারী টাগ বোট গুলো সেই মান্ধাত্মা আমলেরই।

এরমধ্যে টাগ বোট আইটি বেলজিয়াম, আইটি-৩৯১, আইটি-৩৯২, আইটি এরাবিয়া, আইটি-৩৯৫ ও টাগ বোট আইটি-৩৯৭ এখন অনেকাংশেই দুর্বল হয়ে পড়েছে।

বিআইডব্লিউটিসির মেরিন প্রকৌশল সূত্রে এ সব তথ্য জানা গেছে। সূত্রটি জানায়, নৌরুটে চলাচলরত ডাম্প ফেরী রানীগঞ্জ, লেন্টিং, থোবাল, টাপলো, রানীক্ষেত ও ফেরী রায়পুরাসহ বেশীর ভাগ ফেরীই ১৯৪২ সাল থেকে ১৯৬০ সালের মধ্যে তৈরী।

বিআইডব্লিউটিসির সূত্রে জানা গেছে- ঢাকা-মাওয়া-খুলনা মহাসড়কে মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মাওয়ায় প্রমত্বা পদ্মা নদীতে ১৯৮৭ সালে চালু হয় মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুট। তৎকালীন নৌ-মন্ত্রী এম কোরবান আলী ওই নৌরুটের উদ্বোধন করেন।

১৮ কিলোমিটার দুরত্বের মাওয়া-কাওড়কান্দি নৌরুট দক্ষিনাঞ্চলের ২১ জেলাবাসীর সড়ক পথে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম। এরপর নৌরুটের দুরত্ব কমিয়ে দীর্ঘ ২৬ বছর পর ২০১৪ সালের শেষের দিকে মাওয়াঘাট স্থানান্তর হয় লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়ায়। বর্তমান সরকারের নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান শিমুলিয়া ঘাটের উদ্বোধন করেন।

শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটের দুরত্ব মাত্র ১৪ কিলোমিটার। এই নৌরুট পাড়ি দিতে সর্বোচ্চ ঘন্টা দুয়েক সময় লাগার কথা। কিন্তু সেকালের ফেরী গুলো ভরা বর্ষায় উত্তাল পদ্মার তীব্র ¯্রােত ঠেলে চলাচল করতে হিমশিম খাচ্ছে। এতে পদ্মা পাড়ি দিতে সময় লেগে যাচ্ছে ৩ ঘন্টা থেকে সাড়ে ৩ ঘন্টা।

বিআইডব্লিউটিসির ব্যবস্থাপক গিয়াসউদ্দিন পাটোয়ারী বলেন- নৌরুটে চলাচলরত ফেরী গুলো বেশ পুরনো। ইঞ্জিনের শক্তি কম। পদ্মার প্রবল ¯্রােতের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলাচল করতে পারছে না।

বিআইডব্লিউটিসির সহকারী ব্যবস্থাপক চন্দ্র শেখর স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন- নৌরুটের দুর্বল ফেরী গুলো ¯্রােতের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে পেরে উঠছে না। এরফলে নৌরুটে অধিকাংশ ফেরী চলাচল বন্ধ থাকছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here