ঠিকাদার সরকারি হরগঙ্গা কলেজের নির্মাণাধীন ভবনের কাজ ফেলে রেখে পালিয়েছে


dsc_0031

১০ সেপ্টেম্বর  ২০১৬ (মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডেস্ক) : মুন্সিগঞ্জে সরকারি হরগঙ্গা কলেজের নতুন পরীক্ষা কেন্দ্র ও একাডেমি ভবন নির্মাণ কাজ ফেলে রেখে ঠিকাদার পালিয়ে গেছে বলে অনেকের মুখে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।

নির্মাণাধীন ভবনের ৮৫% শতাংশ কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়ে গেছে বলে মুন্সিগঞ্জ শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর দাবি করছে।
জানা যায়, মেসার্স নূর কনস্ট্রাকশন ১৩-১০-২০১১ তারিখে এই ভবনের নির্মাণ কাজের জন্য কার্যাদেশ পান বলে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর দায়িত্ব প্রাপ্ত সহকারী প্রকৌশলী আফজল হোসেন মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকমকে জানান। এ কাজটি ১৫ মাসের মধ্যে শেষ করার কথা ছিল। কিন্তু বছরের পর বছর পার হলেও এর কাজ এখনো শেষ হয়নি। এ প্রকল্পের কাজের ব্যয় ধরা হয়েছে ২ কোটি ৮৮ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। এই ভবনের নির্মাণ কাজের সময় সরকারি হরগঙ্গা কলেজের অধ্যক্ষ এর বাস ভবন থেকে বিদ্যুৎ ব্যবহার করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। এর ফলে ঠিকাদারের কারণে বিপুল পরিমাণ বিদ্যুৎ বিল বকেয়া পরে গেছে। তবে এখানে অধ্যক্ষ বাস করেন না বলে খবর পাওয়া গেছে। অধ্যক্ষ মুল কলেজের একটি রুমে একাই বসবাস করেন বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে।

সরকারি হরগঙ্গা কলেজের উপধ্যাক্ষ সাহেদুল কবির মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকমকে জানান, নির্মাণাধীন ভবনে অধ্যক্ষের বাস ভবন থেকেই বিদ্যুৎ ব্যবহার করা হয়েছে বলে তিনি জানান। সেখানে প্রায় ১০ হাজার টাকার মতো বিদ্যুৎ বিল বকেয়া পড়েছে। তবে অন্য একটি সূত্রের দাবি এখানে প্রায় ২০ হাজার টাকার বিদ্যুৎ বিল বকেয়া পড়েছে।
তিনি আরো জানান যে, নির্মাণাধীন ভবনটি কাজ অনেক দিন ধরে বন্ধ রয়েছে। ঠিকাদার এর কাজ করছে না। ঠিকাদারকে একাধিক চিঠি দিয়েছে মুন্সিগঞ্জ শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর। তার জানা মতে মে মাসের মধ্যে যদি ঠিকাদার কাজ শুরু না করে তবে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর আবার পুন:টেন্ডার আহবান করবেন। নির্মাণাধীন ভবনে কলেজের কি কাজ করা হবে এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ভবন নির্মাণ শেষ হলে আমাদের কাছে এটি হস্তান্তর করা হলে তখন বলতে পারবো এটি কি কাজের জন্য ব্যবহার হবে। এখনো আমি জানিনা এটি কি কাজের জন্য ব্যবহার হবে।
মুন্সিগঞ্জ শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী আফজাল হোসেন জানান, ঠিকাদারের সাথে কথা হয়েছে খুব তাড়াতাড়ি আবার এখানে কাজ শুরু হবে।
অন্য একটি সূত্রে জানা যায়, ঠিকাদারের কাছে কে বা কাহারা মোটা অংকের চাঁদা দাবি করায় সে কাজ রেখে পালিয়ে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here