চাঁদাবাজির মহাউৎসব: মাওয়ায় পারাপারের অপেক্ষায় সহস্রাধিক পণ্যবাহী ট্রাক

????????????

৬ অক্টোবর ২০১৬ (মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডেস্ক) : লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়ার (মাওয়া) ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে সহস্রাধিক পণ্যবাহী ট্রাক। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই শিমুলিয়া ১, ২, ৩ নং ফেরি ঘাট এলাকায় এই ট্রাকের লাইন দেখা গেছে। অন্যদিকে ঘাট এলাকায় পারাপারের জন্য একটি দালাল চক্র চাঁদাবাজি করছে।

তাদের চাঁদা না দিলে সিরিয়াল অনুযায়ী পাড় হয়না এমন তথ্য জানালেন বেশ কয়েকজন ট্রাক চালক ও হেল্পার।

মাওয়া নৌ ফারীর ইনচার্জ মোশারফ হোসেন জানান, ঘাট এলাকায় চাঁদা না দিলে সিরিয়াল অনুযায়ী পাড় হয়না এমন তথ্য শুনেছি। ঘটনাটি প্রমান হলে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

এদিকে গতকাল বুধবার দিবাগত রাত ৮টা থেকে ২ কি.মি যানজট সৃষ্টির হওয়ায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। সকাল ১১টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দীর্ঘ ১৫ ঘন্টা ফেরিসহ সকল নৌযান চলাচলে সাভাবিক ছিল না। এতে অসহনীয় এযানজটে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন দক্ষিণবঙ্গের যাত্রীরা।

প্রতিদিনই প্রায় স্রোতের তীব্রতা ও স্রোতের ঘূর্ণাবর্তে শিমুলিয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটে ধেয়ে আসছে অসংখ্য পলি। এতে করে ভরা বর্ষায়ও নৌরুটে পলি জমে জমে ক্রমেই একটি ডুবোচরের অস্তিত্ব দেখা দিচ্ছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তবে এরই মধ্যে গত সেক্টম্বর মাস থেকে নৌরুটের লৌহজং টার্নিং পয়েন্টে স্রোতের কারণে ওয়ান ওয়ে ফেরি চলাচলের জন্য মাস্টারদের নির্দেশনা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এ জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা শিমুলিয়া ঘাটে পারপারের অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে নিরুপায় অসংখ্য যাত্রীদের। এ সময় অলস সময় পার করতে বাধ্য হচ্ছেন এসব যাত্রী।

বিআইডব্রিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) খালিদ নেওয়াজ ও সহকারি ব্যবস্থাপক জসীমউদ্দিন আহমেদ জানান, আগামীকাল শুক্রবার ছুটিরদিনকে কেন্দ্র করে রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ফেরিযাত্রীসহ ঘাটে চরম দুর্ভোগে পড়েন বিপুল সংখ্যক যাত্রী ও ছোট বড় পন্যবাহী গাড়ি আচ্ছন্ন হয়ে পড়ে।

সেই সঙ্গে দক্ষিণবঙ্গের ভিআইপি গাড়ির চাপ ও বেড়ে উঠে। ফলে নিরাপত্তাজনিত কারণে বাধ্য হয়ে জরুরিভিত্তিতে দ্রুত গতির বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া দেখতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ফেরি চালকেরা চরম দুর্ভোগে পড়েন।

গতকাল বুধবার বিকেল ৪ টাথেকে সন্ধ্যা৭টা পর্যন্ত শিমুলিয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটের লৌহজং টার্নিংয়ের মুখে পানি কম থাকার কারণে রোরো ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। ১৫টি ফেরি কোন রকম অবস্থায় চলাচল করছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here