মুক্তিযোদ্ধার সন্তান প্রয়াত হারুন অর রশিদকে নিয়ে স্মৃতিচারণ বন্ধু আক্তার খানের

31530916_572168083153969_7075460309464383488_nমঙ্গলবার, ১ মে ২০১৮, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম:  মুন্সিগঞ্জ জেলা কৃষকলীগের প্রচার সম্পাদক হারুন অর রশিদ সোমবার রাত সাড়ে ৭টায় মারা গেছে। তার মৃত্যুর পর তার বাল্য বন্ধু পঞ্চসার ইউনিয়নের ডিঙ্গাভাঙ্গার মুক্তিযোদ্ধার সন্তান আক্তার হোসেন খান তাকে নিয়ে তার স্মৃতিচারণ করেছেন।তার সেই অনুভুতি গুলো হুবুহুব এই প্রতিবেদনে তুলে ধরা হলো।

এত অকালে তুই চলে যাবি কখোনোই ভাবিনি দোস্ত।
এক সাথে প্রাইমারিতে পড়ে ছিলাম। তুই খুব মেধাবি ছিলি।পঞ্চম শ্রেণিতে টেলেন্টপুলে বুত্তি পেয়ে তুই কে.কে. গভ: ইনস্টিটিউট স্কুলে, আর আমি মুন্সিগঞ্জ হাই স্কুলে চলে গেলাম। একই সাথে এস. এস. এসসিতে পরিক্ষা দেওয়ার কথা থাকলেও আমি ১৯৮১ সালে বাবার সাথে রাজনৈতিক মামলায় পরে, পড়ালেখা বন্ধ করে দিলাম, পরে কাজের সন্ধানে নেমে পরি।

তুই মেট্রিক পাস করে চলে গেলি হরগঙ্গায়, আমার আর কলেজ পর্যন্ত যাওয়া হল না।
দোস্ত তুই আমাকে পঞ্চসার ইউনিয়ন কৃষক লীগের সেক্রেটারি বানালি, তোর এই অবদানের কথা আজীবন মনে রাখব। কোন খানে তুই ছিলি না?

সব জায়গায় তোর পদচারণা ছিল। তোর কাছে রাজনৈতিক কোন বিভাজন ছিল না। সবার সাথেই ছিল তোর গভীর ভালবাসা। আওয়ামী রাজনীতিতে তোর পদচারণা সারা মুন্সিগঞ্চ বাসি কখোনওই ভুলবে না ভুলতে পারবে না। ক্ষমা করে দিস বন্ধু চলার পথে দৈনন্দিন কত কথা হয়েছে। কতো তর্ক হয়েছে।  আবার এক সাথে বসে চা খেয়েছি। মনে কোন অহংকার ছিল না তোর।

তোর অনেক ধৈর্য ছিল। অনেক বড় মাপের নেতা হয়েও কখোনো অহংকার করতে দেখিনি তোকে।
দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে বিনীত অনুরুধ, আমার আপনার সকলের প্রিয় পাত্র মুন্সিগঞ্জ জেলা কৃষক লীগেরর প্রচার সম্পাদক হারুন রশিদ ঢালির জন্য সবাই দো’য়া করবেন আল্লাহ্ যেন উকে
জান্নাতুল ফেরদৌস নসিব করেন আমিন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here