পঞ্চসারের ডিঙ্গাভাঙ্গায় মাদক ব্যবসায়ীদের রমরমা ব্যবসা ও সেবনের আস্তানা

রবিবার, ২৭ মে ২০১৮, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম:

Madok-01-696x390

মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউপির ৪ নং ওয়ার্ডের ডিঙ্গাভাঙ্গা এলাকায় এখন দিন-দুপুরেই চলছে মাদক সেবিদের আসর। এ সকল মাদক সেবীরা প্রশাসনের নাগালের বাইরেই থাকে। এদের কেউ ধরতে পারে না। জানা যায়, সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের সরকার পাড়া গ্রামের মহন পোদ্দারের বাড়িতে ওপেন সিক্রেটভাবে চলছে মাদক সেবিদের আসর।

আর ঐ মাদক সেবিদের অত্যাচারে এলাকাবাসি অতিষ্ট। জানাযায়, এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা দেদারছে চালিয়ে আসছে এলাকার মহন পোদ্দারের ছেলে শাহাবুদ্দিন (২৩) ও মিজান (২৭)। তাদের বিরোদ্ধে কেউ কথা বললে তাদের নামে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে পুলিশী হয়রানী করে থাকে। মুন্সিগঞ্জ জেলার মাননীয় সু-যোগ্য পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম

যখন মাদকে বিরোদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ের লক্ষে সচেতন মহলের সাধারণ মানুষের প্রতি আহ্বান জানান। নিজ নিজ এলাকা থেকে যুব সমাজ তথা সচেতন মহল এগিয়ে এসে মাদক প্রতিরেনাধ করার জন্য। আর সেই সাহসিকতার আলোকে ঐ এলাকার যুব সমাজের কিছু সংখ্যক যুব ঐ মাদক ব্যবসায়রি বিরোদ্ধে প্রতিবাদ করেন। তখন মাদক ব্যবসায়ী শাহাবুদ্দিন চড়াও হয়ে গিয়ে

তাদের বিরোদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে মুন্সিগঞ্জ সদর থানায় একটি মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করে নিজেকে অপরাধের হাত থেকে আড়াল রাখার জন্য।

অত্র এলাকার সকল সচেতন মহলের সাধারন মানুষ ঐ মাদক ব্যবসায়ীদের বিরোদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে চায় প্রশাসনের সহযোগিতায়। মাদক ব্যবসায়ী শাহাবুদ্দিন ও তার ভাই মিজানের বিরোদ্ধে প্রতিবাদ করেন এলাকার যুব সমাজের

মোকলেছ মিয়ার ছেলে ইব্রাহিম, শাহাবুদ্দিনের ছেলে সুমন, আনোয়ার হোসেন মিয়ার ছেলে শরিফ , ফুলচাঁন এর ছেলে দুলালও বিল্লাল মিয়ার ছেলে কাজল।

ইতিমধ্য মোখলেছের ছেলে ইব্রাহিম কে বেদম প্রহার করে। এলাকাবাসি জানায় মাদক ব্যবসার সাথে শাহাবুদ্দিনের বাবা মহন পোদ্দার ও তার স্ত্রী স্ত্রী হাসিনা বেগম ও অতপতভাবে জড়িত। এলাকাবাসি আরোও জানায় ঐ মাদক ব্যবসায়ী শাহাবুদ্দিন ও মিজানের মাদক ব্যবসার হাত থেকে যুব সমাজ রক্ষার্থে ওদের আইনের আওতায় আনার জন্য এলাকাবাসি উদ্দর্তন প্রশাসনের

সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন। এ ব্যাপারে দ্রুত মাদক সেবীদের বিরুদ্ধে প্রশাসন ব্যবস্থা গ্রহন করবে এমনটাই আশা করেন সাধারণ জনগণ।

মুন্সিগঞ্জ ক্রাইম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here