জোড়া খুনের আসামী আধারার মেম্বার কমলকে ইয়াবাসহ গ্রেফতার

মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম:

35728627_181446299214012_6431123835340193792_nমুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার আধারা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার কমর উদ্দিন কমলকে পুলিশ ইয়াবাসহ গ্রেফতার করেছে। মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে মুন্সিগঞ্জ থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে কমলকে গ্রেফতার করে।

দীর্ঘদিন কমল এলাকায় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের ছত্রছায়ায় মাদক ব্যবসা পরিচালনা করছিলো বলে অভিযোগ উঠেছে। তার বিরুদ্ধে এলাকায় অস্ত্র মজুদ রাখার অভিযোগ উঠেছে। কমলের নেতৃত্বে সেখানে একদল সন্ত্রাসী দিনে দুপুরে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেয় বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেছে। কমলের গ্রেফতারের পর থেকে সেখানকার সাধারণ মানুষ মুখ খুলতে শুরু করেছে। দীর্ঘদিন তার

হাতে সেখানকার মানুষ জিম্মি ছিলো। তার অত্যাচারের হাত থেকে ভাইস চেয়ারম্যানের পরিবারও রক্ষা পায়নি।
জানা যায়, বেশ কিছুদিন আগে দিনের বেলায় কমলের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান আমির হোসেন গাজীর ছোট ভাই জাকির হোসেন গাজীসহ চার-পাঁচজনকে স্থানীয় ফকির চাঁন মুন্সির ঘরে অস্ত্রের মুখে আটক করে রাখে।

সেখানে সেই সময় চার থেকে পাঁচ রাউন্ড গুলি ব্যবহার করে বলে অভিযোগ উঠেছে। তার ভয়ে সেই সময কেউ তাদেরকে উদ্ধার করতে এগিয়ে আসার সাহস পায়নি।

পরে একদল পুলিশের নেতৃত্বে বিকেলের দিকে সেইদিন আটককৃতদের সেখান থেকে উদ্ধার করা হয়।
সোমবার রাত পৌনে ১০টার দিকে দক্ষিণপাড়ার মসজিদের পাশে সৈয়দপুর ছাত্র কল্যাণ সংঘের সংঘঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক শামীমের নেতৃত্ব যুব নেতারা জাজিরার আ: রব মুন্সির পুত্র লাভলু মুন্সিকে ইয়াবাসহ আটক করে। পরে তাকে ইয়াবাসহ পুলিশের

কাছে সোর্পদ করার লক্ষ্যে স্থানীয় মেম্বার কমলের কাছে হস্তান্তর করে। ইতোমধ্যে মুন্সিগঞ্জ সদর থানার পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে যায়। কিন্তু এই সময় কমল লাভলুকে ছেড়ে দেয়। পুলিশ কমলের কাছ থেকে তার দেয়া ইয়াবা নিয়ে থানায় ফিরে আসে।

কমল লাভলুকে ছেড়ে দেয়ার ঘটনায় পুলিশের সন্দেহ হওয়ায় মঙ্গলবার কমলকে পুলিশ গ্রেফতার করে।
২০০৯ সালে ৪ঠা ফেব্রুয়ারি বুধবার স্থানীয়ভাবে কমলের নেতৃত্বে জামাই শশুড়ের খুনের ঘটনা ঘটে। আর সেই জোড়া খুনের মামলার প্রধান আসামী হচ্ছে কমল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here