কবি অয়ন সাঈদের প্রথম কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে

সব মানুষের সৃজন প্রয়াসী অনলাইন পোর্টাল

শুক্রবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম:

IMG_20190129_135201_712
পুলিশের ভ্যান-গ্রামবাসী-ডুবুরির ভেজা শরীরের জল
বলছিল অজ্ঞাতনাম তাহার দুটি হাত এখনো নিখোঁজ।
                 -(হাতের মাতৃভাষা)
আমাদের দেশে বিগত কয়েক বছর যাবৎ ধরে রাজনৈতিক-সামাজিক অবক্ষয় সৃষ্টি হয়েছে। তাতে মারাত্মকভাবে সংঘটিত হচ্ছে গুম, খুন, ধর্ষণ। এছাড়াও আমরা দেখতে পাচ্ছি একনায়কতন্ত্র শাসন ব্যবস্থার চলচিত্র। ফলে মানুষ তার কথা বলার অধিকার, লেখার অধিকার হতে বঞ্চিত হচ্ছে! এরই এক দৃশ্যমান প্রতীকি চিত্রায়ন ‘হাতের মাতৃভাষা’ কবিতায় মর্মস্পর্শী হয়ে জাগরিত করে তুলে।
এবং-
দেখি তাহার নিখোঁজ হাত দুটো ক্রমশ
ক্রুশবিদ্ধ যিশুকে মুক্ত করে দিচ্ছে
যিশু কিন্তু বোঝে সে হাতের মাতৃভাষা, আমরা বুঝি না?
                  -(হাতের মাতৃভাষা)
সমকালিন রাজনীতির এক নিখুঁত ভাষাচিত্র এটি। কবিতাটি রাজনীতির একটি বিশ্বস্ত দলিল হিসেবে বিবেচনার যোগ্য হতে পারে।
চৈতন্যে মাতাল হয়ে যাই যখন বসন্ত জাগে মনে
রুমির অলৌকিক বাগান থেকে আপেল খেয়েছি তাই আমার
কবিতায় মেকি-সৌজন্যবোধ নেই, এবং আমার পিতা-
সেই সুরা প্রস্তুতকারী যিনি রুমি ও শামস-ই-তাবরিজের
গোপন কথাবার্তা আমাকে পাঠ করে শোনান
তাই, স্বভাবতই আমার বারোমাস বসন্ত প্রচ্ছন্ন মাতাল।
                -(মাতালের কৈফিয়ত)
aahar-bilas
উল্লেখিত কবিতায় সুফি দর্শনের ভাবছায়া’র রূপান্তর ঘটানো হয়েছে। ফলে একটি চমৎকার কবিতার শরীর নির্মাণ হয়েছে। কবিতার তত্ত্বের ওপর কবির মন আধিপত্য না লাভ করলে কবিতাই না। মূলত কবি তার এ কাব্যে নিজেকেই প্রকাশ করতে চান।
তরুণ কবি অয়ন সাঈদ। এবারের একুশের বই মেলায় প্রকাশিত হয়েছে তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘এ মুখ পিতার এ মুখোশ পুত্রের।’ এই কাব্যগ্রন্থে মোট ৫৬টি কবিতা স্থান পেয়েছে। প্রতিটি কবিতাই সুবোধ্য গদ্যে লেখা। কবিতার বিষয়বস্তু সম-সাময়িক। এতে কিছু কবিতা রয়েছে নানা জাতিয় তত্ত্ব এবং দর্শন। যা পড়ে পাঠক তৃপ্তি পাবে এবং ভাবনার মগজে নতুন এক মাত্রার সংযোগ ঘটবে। এছাড়াও সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারিদের দুর্নীতি, অনিয়ম, ঘুষ গ্রহণ, এদের দ্বারা সাধারণ মানুষ বিভিন্নভাবে নানা অজুহাতে হয়রানির শিকার হচ্ছে- এসব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ও প্রতিবাদ হিসেবে ওঠে এসেছে এই কাব্যগ্রন্থের কিছু কবিতায়ও।
‘এ মুখ পিতার এ মুখোশ পুত্রের’ শীর্ষক গ্রন্থ শিরোনাম কবিতাটি মনস্তাত্ত্বিক দ্বন্দ-দর্শনে আচ্ছন্ন।
যেমন-
এ যাওয়া সুদীর্ঘ সুদূর বসন্তের মুখোমুখী
এ যাওয়া মুখ ও মুখোশের এক হয়ে যাওয়া
এ মুখ পিতার এ মুখোশ পুত্রের
এ যাওয়া মানে প্রকাশিত হওয়া
চমৎকার সকাল; বন্ধুরা বিদায়।
কবিতাটির ভাব-ভাষা বিন্যাস, চিত্রকল্প, রূপকতা অত্যন্ত গভীর-রহস্যময়। এর অভ্যন্তরীণ গল্প রহস্যময়তা উদঘাটন করবার জন্যে সানন্দে পাঠক তার নিজের আত্মতৃপ্তি উপলুব্ধির জন্যে বারবার এ কবিতাটি পড়বে বলে প্রত্যাশা করা যায়।
‘এ মুখ পিতার এ মুখোশ পুত্রের’ কাব্যগ্রন্থটি ইতিমধ্যে পাঠকদের মাঝে সাড়া জাগিয়ে তুলেছে। এ কাব্যগ্রন্থের কবি অয়ন সাঈদ অনেক দিন থেকেই কবিতাচর্চা করছেন। দেশের বিভিন্ন জাতীয় সংবাদ পত্রের সাহিত্য সাময়িকীতে তার কবিতা প্রকাশিত হয়েছে, এখনো হচ্ছে।
গতবছর কবিতায় সম্মাননা পেয়েছেন কবি অয়ন সাঈদ। চতুরঙ্গ সাংস্কৃতিক সংগঠন চাঁদপুর কর্তৃক প্রদত্ত ১০ম ইলিশ উৎসব-২০১৮, তাকে এ সম্মান প্রদান করেন।
আলোচ্য কবিতা ৩টি এই কাব্যগ্রন্থের অন্তর্ভুক্ত।
‘এ মুখ পিতার এ মুখোশ পুত্রের’ কাব্যগ্রন্থটি প্রকাশ করেছে “দৃষ্টি প্রকাশনী” বিজয় সরণি, ঢাকা। এটির নান্দনিক প্রচ্ছদ এঁকেছেন শিল্পী ধ্রুব এষ। গ্রন্থটির বহিঃসাজসজ্জা (Get up and make up) খুব আকর্ষণীয়। ৬৪ পৃষ্ঠার এ বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ১৫০ টাকা মাত্র। পাঠকদের ক্রয়-ক্ষমতার মধ্যে রয়েছে তা বলাই বাহুল্য।
মহান একুশের বই মেলার লিটলম্যাগ চত্বরে’এ ৫১ নং স্টলে ‘দৃষ্টি প্রকাশনী’তে বইটি পাওয়া যাচ্ছে। পাঠক আপনিও তরুণ এই কবির বইটি সংগ্রহ করতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here