সিরাজদিখানে স্কুলছাত্রী অপহরণ যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

সব মানুষের সৃজন প্রয়াসী অনলাইন পোর্টাল:

শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম:

20180228101419

সিরাজদিখান উপজেলায় স্কুল ছাত্রী অপহরণের অভিযোগে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। গত মঙ্গলবার ওই ছাত্রীর বাবা শেখ হায়দার বাদী হয়ে যুবলীগ নেতাসহ তিনজনকে আসামি করে মুন্সিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতে মামলাটি দায়ের করেছেন।

মামলার আসামিরা হলেন, শাকিব (১৮), উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক জহিরুল ইসলাম লিটু হাওলাদার (৩৫) ও তোতামিয় (৪০)। মামলায় যুবলীগ নেতার নাম একদির পর শোনা যায় ভুল বসত উঠেছে।

মামলা সুত্রে জানা যায়, শেখ হায়দারের একমাত্র মেয়ে মাহমুদা আক্তার (১৪) উপজেলার রশুনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। মাহমুদা আক্তারকে স্কুলে যাতায়াতের সময় প্রায়শই ওই তিন আসামি উত্যাক্ত করত খারাপ প্রস্তাব দিত। হায়দার আসামিদের বাধা নিষেধ করে আসছিলো। বিদ্যালয়ের  শিক্ষকদেরও বিষয়টি জানানো হয়েছিল। এতে আসামিরা আরো বেপরোয়া আচরন শুরু করে।

মামলার এজাহারে আরো উল্লেখ রয়েছে যে, গত ১৫ এপ্রিল সোমবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে মাহমুদা বিদ্যালয়ে ১ম সাময়িক বিজ্ঞান পরীক্ষার দিতে যাচ্ছিল।

সে রশুনিয়া কালভার্ট সেতুতে পৌছালেই আগে থেকে ওৎপেতে থাকা লিটু-শাকিবরা মাহমুদাকে গামছা দিয়ে মুখ বেধে নিয়ে যায়। মাহমুদা বাধা দিলে তাদের মধ্যে ধস্তা ধস্তি হয়।

মামলার সাক্ষীরা মাহমুদাকে উদ্ধারে এগিয়ে আসলে আসামিরা তাদের হাতে থাকা আগ্নেয়াস্ত্র উঠাইয়া হুমকি প্রদর্শন করে, মাহমুদাকে অসৎ উদ্দেশ্যে অপহরন করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়।

মামলায় বলা হয়, মাহমুদাকে ধর্ষন করা হতে পারে। পরে তাকে হত্যা করে লাশ গুম করার আশংকা রয়েছে বলে বাদী তার এজাহারে উল্লেখ করেছেন।

এ বিষয়ে জহিরুল ইসলাম লিটুর বলেন, ঘটনায় আমি জাড়িতনা। বাদীর ভুল বসত আমার নাম স্বাক্ষীর পরিবর্তে আসামী  স্থলে হয়েছে , বাদীর সাথে কথা বললে সব জান্তে পারবেন ।

মামলার বাদী শেখ হায়দার জানান, আমার মেয়ে এখনো উদ্ধার হয় নাই , পুলিশ উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে, লিটুর নামটি ভুল বসত আসামীতে উঠেছে আইনের মাধ্যমে সংশোধনের চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ফরিদ উদ্দিন জানান, আমরা যতটুকু জান্তে পেরেছি যুবলীগ নেতা লিটু মধ্যস্তা করার চেষ্টা করে ছিল কিন্তু তার নাম আসামীর জায়গায় নাম উঠেছে, উপজেলা চেয়ারম্যান মেয়ে টিকে উদ্ধারের জন্য আমাদের সহযোগিতা করতেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here