উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাজশাহীর তালাইমারী বালু ঘাটে প্রভাবশালী নেতার বালু উত্তোলন শুরু

৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রোববার, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম:

Balu ghat Pic- 08.09.2019উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা আর জেলা প্রশাসকের নিদের্শ অমান্য করেই শুরু হলো তালাইমারী বালু ঘাটে বালু উত্তোলন ও পরিবহন। রোববার দুপুরে ঘাটটিতে ভেকু মেশিন দিয়ে ডাম-ট্রাকে বালু লোড করে নিয়ে যেতে দেখা যায়।

অবৈধ বালু ঘাট বন্ধে মহামান্য হাইকোর্টে রিট আবেদনকারী মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, মহামান্য হাইকোট এবং জেলা প্রশাসককে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। এতে করে অর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবে রাজশাহীর অন্যান্য বাঘু ঘাটের ইজারাদারগণ।

যারা লক্ষ টাকার ঘাট কয়েক কোটি টাকা দিয়ে ইজারা নিয়েছেন, তাদের নিয়ে প্রশাসনের তথা সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা কর্মকর্তাদের সূদৃষ্টি কামনা করেন তিনি। পাশাপাশি অন্যান্য ব্যবসায়ীরা যাতে পথে না বসে সেদিকে লক্ষ্য রেখে অবৈধ তালাইমারী বালু ঘাট বন্ধের জন্য জেলা প্রশাসককে অনুরোধ জানান তিনি।

balu ghat-08.09.2019উল্লেখ্য উচ্চ আদালতের নির্দেশে গত (২৪ জুলাই ২০১৯) জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত বালুঘাটটি বন্ধ করে দেয়। জব্দ করা হয় ভেকু ও আনলোড মেশিনের ব্যাটারী। আটক করা হয়েছিল ট্রাক চালকসহ আট জনকে। ভ্রাম্যমান আদালত কতৃক ১ মাস মেয়াদে সাজা দেওয়া হয় ৬ জনকে। আর ১৫ দিন করে সাজা হয়েছিল ২ জনের।

ওই দিনই জেলা প্রশাসন একটি সাইন বোর্ড পুতে যায় তালাইমারী ঘাটটিতে সেখানে বিজ্ঞপ্তিতে পরিস্কার বাংলায় লেখা আছে। “ মহামান্য হাইকোট বিভাগের রিট পিশিটন নং ৬৫২১/২০১৯ এর আদেশ মোতাবেক মৌজা/কাজলাঘাট ব্যবহার করে সকল ধরনের বালু উত্তোলন/ বালু পরিবহন নিষিদ্ধ করা হলো। এ আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। -আদেশক্রমে জেলা প্রশাসক. রাজশাহী।

তালাইমারী বালু ঘাটে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন ও পরিবহনের বিষয়ে মুঠো ফোনে জানতে চাইলে, জেলা প্রশাসক হামিদুল হক বলেন, তালাইমারী বালু ঘাটে বালু উত্তোলন ও পরিবহনের কোন সুযোগ নেই। তিনি আরো বলেন, বালু পরিবহন করা হলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here