শ্রীনগরের কৃতী সন্তানদের তালিকা (চতুর্থ পর্ব)

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম:

70163266_10206396155619599_6519647049795764224_n

৭৬। তাহসান রহমান খান একাধারে গায়ক, গীতিকার, সুরকার, গিটারিস্ট, পরিচালক, অভিনেতা ও উপস্থাপক। এছাড়া তিনি ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন। তিনি তাহসান নামেই জনপ্রিয় গায়ক ও নায়ক। তাঁর জন্ম পাটাভোগ ইউনিয়নের মুশরিপাড়া গ্রামে ১৮ অক্টোবার ১৯৭৯ তারিখে।

৭৭। মহসীন উদ্দীন আহমেদ বীর বিক্রম এর জন্ম দামলা গ্রামে। তিনি সেনাবাহিনীর বিগ্রেডিয়ার জেনারেল ছিলেন। তাঁর পিতার নাম মহিউদ্দীন এবং মায়ের নাম বেগম নুরুন্নাহার। স্বাধীনতা যুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে বীর বিক্রম খেতাব প্রদান করে। সামরিক আইনে জিয়া হত্যা মামলায় তাঁকে ২৪ সেপ্টেম্বর ১৯৮১ তারিখে ফাঁসি দেয়া হয়।

70457705_10206396199860705_387512410669318144_n৭৮। অধ্যাপক আব্দুল কাদির সরদার, সাবেক জগন্নাথ কলেজের বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি প্রফেসর এসোসিয়েশনের সভাপতি ও ঢাবির সিনেট সদস্য ছিলেন।

70588047_10206396199620699_8252780784545431552_n

৭৯। গাজী শামসুদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শ্রীনগর উপজেলা কমাণ্ড, বাড়ি মান্দ্রা, ভাগ্যকুল।
৮০। জিএম মোস্তাফিজুর রহমান, প্রতিষ্ঠাতা- ওয়ান্ডারল্যান্ড, বাড়ি আটপাড়া।
৮১। মিজানুর রহমান দুলাল, প্রতিষ্ঠাতা- হোগলাগাঁও আবুল হাশেম উচ্চ বিদ্যালয়, কুকুটিয়া
৮২। আলহাজ্ব কাজী ফজলুল হক, প্রতিষ্ঠাতা- কাজী ফজলুল হক উচ্চ বিদ্যালয়, কামারগাঁও, ভাগ্যকুল

69714441_10206396156659625_7437293338304184320_n

৮৩। সাংবাদিক ও নজরুল গবেষক শেখ নুরুল ইসলামের বাড়ি বেজগাঁও,
৮৪। কাজী আজিজুল হক লেবু, সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, মুক্তিযোদ্ধা, তন্তর
৮৫। শাহাদত উল্লাহ, অধ্যাপক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ভাষা আন্দোলন করার জন্য কারারুদ্ধ ও বরখাস্ত হন, সমষপুর।
৮৬। মোমিন আলী, সাবেক চেয়ারম্যান, শ্রীনগর উপজেলা পরিষদ, কোলাপাড়া, বস্ত্র ব্যবসায়ী
৮৭। সেলিম আহমেদ ভূইয়া, সাবেক ভারপ্রাপ্ত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, কুকুটিয়া, ইলেক্ট্রনিক্স ব্যবসায়ী
৮৮। মোঃ নূর ইসলাম খান, কর্মসংস্থান ব্যাংকের সাবেক এমডি, ফুলকুচি, কোলাপাড়া
৮৯। ডা. এম এ হাকিমের বাড়ি কেয়টখালী। চিকিৎসক, রাজনীতিবিদ ও মুক্তিযোদ্ধা।
৯০। শামসুল আলম সবজল, সভাপতি, ইসলামপুর বণিক সমিতি, বাড়ি চারিপাড়া
৯১। আআম মাহমুদুল হক, সাবেক জিএম, সোনালী ব্যাংক, ভাষা সৈনিক।
৯২। নিয়াজ মোহাম্মদ খান, ঢাকা ব্যাংকের সাবেক ডিএমডি, কামারগাঁও গ্রাম।
৯৩। জিএ মোমেন, বাড়ৈখালী, ৫২ সালের ভাষাসৈনিক।
৯৪। হলধর রায়, চিত্রশিল্পী ও ভাগ্যকুলের জমিদার।
৯৫। রমেন্দ্রনাথ রায়, পিতা- রাজা জানকী নাথ রায়। কলকাতায় ইউনাইটেড ইনডাস্ট্রিয়াল ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি আমৃত্যু মোহনবাগান ক্লাবের সভাপতি ছিলেন।
৯৬। কাজী জলকদর, ভাষা সৈনিক, সাবেক আওয়ামীলীগ নেতা, কামারগাঁও, ভাগ্যকুল।
৯৭। ডা. আশরাফুল আলম, প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগ, স্বাস’্য মন্ত্রণালয়, বিজ্ঞানী, ভাগ্যকুল।
৯৮। মো: শফিকুল ইসলাম ঢালীর বাড়ি গাদিঘাট, দেশের শীর্ষ পর্যায়ের আইনজীবী (সুপ্রিম কোর্ট)।
৯৯। সোহরাব আহমেদ, চলচ্চিত্র পরিচালক, গীতিকার, গায়ক। প্রতিষ্ঠাতা নারায়ণগঞ্জ উদিচি। গ্রাম মান্দ্রা।
১০০। ডা. আব্দুল মালেক ভূইয়ার বাড়ি কুকুটিয়া, বঙ্গবন্ধুর দাঁতের চিকিৎসক ছিলেন।

ছবি- তাহসান, মহসীন উদ্দিন আহমেদ, গাজী শামসুদ্দিন, ডাঃ আশরাফুল আলম

মুজিব রহমানের ফেসবুক থেকে নেয়া:

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here