আড়িয়ল বিলের মেয়ে প্রতিভা বসু কাজী নজরুল ইসলামের ছাত্রী

৩রা অক্টোম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম:

64789185_10206111747949585_8359201342471798784_n‘জীবনের জলছবি’ নামক গ্রন্থে প্রতিভা বসু লিখেছেন, সেই ছাদটা আমাদের গ্রামের বাড়ি হাঁসাড়া গ্রামের ছাদ। হাঁসাড়া গ্রাম ঢাকা (বর্তমানে মুন্সিগঞ্জ জেলার) জেলার বিক্রমপুর পরগনার একটি গ্রাম। আমার জন্মস্থান সেখানে। জন্মেছিলাম ফাল্গুন মাসে। সেদিন দোলপূর্ণিমা ছিলো। বৃহস্পতিবার ছিল। সবাই বলতো আমি নাকি খুব লক্ষ্মী।

জলের গ্রাম। এ বাড়ি ও বাড়ি সব খাল দিয়ে ঘেরা। নৌকা ছাড়া কোথাও যাবার উপায় নেই..। তখনকার দিনের ফ্যাশনমতো আমাদেরও চকমিলানো বাড়ি। মাঝখানকার বাঁধানো উঠোনটা এতো বড়ো যে একসঙ্গে চারটে বিয়ে হতে পারে।

যেখানে বর-কনে বসে তার চারদিকে চারটে কলাগাছ রোপন করার নিয়ম। সুতরাং সেই বাঁধানো উঠোনে ষোলোটা গর্ত ছিলো। একবার একসঙ্গে যখন দুটো বিয়ে হচ্ছিলো, দৈবাৎ কনে বদল হয়ে গেল.. কাকার কাছে বসিয়ে দেয়া হলো তার নিজের বোনকে। কাকা চিনতেই পারেননি বোনকে। কিন্তু বোন চিনতে পেরে কেঁদে ফেলে বলে উঠেছে, ‘সোনাদা, আমি টুনি..

প্রতিভা বসু অর্থাৎ রানু সোম অনেক কথা লিখেছেন হাঁসাড়া গ্রামকে নিয়ে। তাঁর বাড়ি থেকে উঁকি দিলে দেখা যায় পশ্চিমবঙ্গের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী সিদ্ধার্থ শংকর রায়ের বাড়ি।

প্রতিভা বসুর সেই বাড়ি এখন অর্পিত সম্পত্তি। কিছুকাল আগে বলা হতো শত্রু সম্পত্তি। হাঁসাড়া ইউনিয়ন পরিষদের পূর্বদিকেই যে সোম বাড়ি অর্থাৎ রানু সোমের পিতা আশুতোষ সোমের বাড়ি সেখানেই জন্মেছিলেন প্রতিভা বসু।

এর কিছুটা পশ্চিমেই আড়িয়াল বিল। বিক্রমপুরেরই মালখানগরের বিখ্যাত বসু পরিবারের বিখ্যাত কবি বুদ্ধদেব বসুর স্ত্রী। নিজে লিখেছেন, ছিলেন বিখ্যাত গায়িকা, কাজী নজরুলের প্রিয় ছাত্রী। তাঁর বাড়ি বিক্রমপুরের হাঁসাড়ায় ছিল ভাবতেও ভাল লাগে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here