লৌহজংয়ের বাসুদিয়ায় মাদ্রসা-মসজিদের কমিটি ঘটনকে কেন্দ্র করে রক্তক্ষয়ি সংঘর্ষের আশংকা

মোহাম্মদ সেলিম ও মোহাম্মদ কামাল:

৬ অক্টোম্বর ২০১৯, রোববার, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম:

71716432_590329744836950_9159241406257037312_nলৌহজং উপজেলার ক্ষিদিরপাড়া ইউনিয়নের বাসুদিয়া এলাকায় বাসুদিয়া জামে মসজিদ-এতিমখানা ও বাসুদিয়া নেসারিয়া ইসলামীয়া সিনিয়র মাদ্রাসার কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে হামলা পাল্টাপাল্টি মামলার জেরে গাড়ী ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় ইতোমধ্যে লৌহজং ও টঙ্গীবাড়ী থানায় মামলা ও সাধারণ ডায়রী দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনার জেরে সেখানে যেকোন সময় রক্তক্ষয়ি সংঘর্ষের আশংকা করছে এলাকাবাসী।

গত ৪ অক্টোবর শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর বিষয়টি এলাকাবাসী মীমাংসার চেষ্ঠা চালালোও একটি পক্ষের বিরোধীতার কারণে সেটি আর হয়ে উঠেনি বলে এলাকাবাসী এ প্রতিবেদককে জানিয়েছে। সেখানে বিবদমান পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য লৌহজং থানার একাধিক পুলিশ সাদা পোষাকে সেখানে জুম্মার নামাজ আদায় করেন।

গত ৩ অক্টোবর বৃহস্পতিবার আনুমানিক সময় রাত ১০টার সময় লৌহজং উপজেলার বাসুদিয়া গ্রামের করিম মোল্লার বাড়ির সামনে অপেক্ষমান গাড়ীতে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা সন্ত্রাসীদের হামলায় গাড়ীর সামনের অংশটি ভেঙ্গে যায়। এ হামলার সময় করিম মোল্লাসহ একাধীক ব্যক্তি কোন রকমে জীবন নিয়ে নিরাপদ স্থানে চলে যেতে সক্ষম হয়ে। ভেঙ্গে ফেলা গাড়িটির নম্বর হচ্ছে ঢাকা মেট্রো-ঘ ১৫-৪১২০।

করিম মোল্লা স্থানীয় মসজিদ ও মাদ্রাসার দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকার কারণেই এ মামলা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

করিম মোল্লা জানান, এলাকার স্থানীয় সন্ত্রাসীরা ৩টি মোটর সাইকেল নিয়ে একাধিক মুখোসধারী সন্ত্রাসীরা ঐদিন আমাদের ওপর হামলা চালায়। হামলার সময় আমাদের আতœ চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে আসলে সন্ত্রাসীরা লাইসেন্স বিহীন একটি মোটর সাইকেল ফেলে রেখে অন্য দুটি নিয়ে পালিয়ে যায়। লাইসেন্স বিহীন মোটর সাইকেলটি লৌহজং থানায় সোর্পদ করা হয়েছে।

করিম মোল্লা আরো জানান, একাধিক সন্ত্রাসীদের মধ্যে চারজন সন্ত্রাসীকে সে চিনতে পেরেছেন। তাঁরা হচ্ছেন, অভি শেখ, অন্তু শেখ, ঠান্তু শেখ ও পারভেজ শেখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here