টঙ্গীবাড়ীতে নবজাতকের লাশ ফ্রিজে

received_658413571751346-620x330টঙ্গিবাড়ীতে দু-পক্ষের সংঘর্ষে গুরুতর আহত হয়ে ৯ মাসের সন্তান গর্ভপাত হওয়া শারমিনের নবজাতকে লাশ সুষ্ঠ বিচার পাওয়ার আশায় ড্রিপ ফ্রিজে রেখে দিয়েছেন ভূক্তভোগী পরিবার।

এদিকে আহত শারমিন এখনো ঢাকাস্থ মগবাজারের আদদ্বীন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। এ ঘটনায় আটক হেনা বেগম ও সেলিনা বেগম এর জামিন আবেদন মঙ্গলবার নামঞ্জুর করেছে আদালত।

মঙ্গলবার দুপুরে মুন্সিগঞ্জ আমলি আদালত ৪ এর বিচারক নাজনিন রেহেনা এর আদালতে জামিন আবেদন করলে আদালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে। এর আগে ওই দুই আসামীকে রবিবার তাদের নিজ বাড়ি হতে গ্রেফতার করে পুলিশ।

জানাগেছে গত ১ লা সেপ্টেম্বর জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে টঙ্গিবাড়ী উপজেলার ধামারণ গ্রামের আলম ঢালী ও তার ছোট ভাই সেরাজল ঢালীর সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ সময় উভয় পক্ষের ৮ জন আহত হয়। এদের মধ্যে আলম ঢালীর ৯ মাসের গর্ভবর্তী পুত্র বধূ শারমিন বেগমকে (২৫) গর্ভাবস্থায় তার পেটে লাথি মারে প্রতিপক্ষের লোকজন। এতে সে গুরুতর আহত হলে তাকে প্রথমে টঙ্গিবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে পরে মু্িন্সগঞ্জ সদর হাসপাতলে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা রেফার্ড করে।

পরে আহত অবস্থায় তাকে ঢাকার আদদ্বীন হাসপাতালে ভর্তি করে সিজার করানো হলে শারমিন একটি মৃত বাচ্চা প্রসব করে। ওই হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক শারমিনের পরিবারকে জানিয়েছে পেটে আঘাতের কারনেই শারমিন মৃত বাচ্চা প্রসব করেছে বলে জানান শারমিনের শশুর আলম ঢালী।

আলম ঢালী আরো জানায়, আমার দখলিয় জমি গত ১ই সেপ্টেম্বর জোর করে দখল করতে আসে আমার ছোট ভাই সেরাজল ঢালী, আমার ভাইয়ের ছেলে শিপন ঢালী, ভাইয়ের বৌ সেলিনা বেগম এবং ভাতিজা বৌ হেনা বেগম। এ সময় আমরা বাধা দিলে তারা আমার

ছেলের বৌয়ের পেটে আঘাত করে তার গর্ভের বাচ্চা মেরে ফেলে এবং আমি ও আমার ছেলে সোহেলকে মারধর করে।

পরে আমি তাদের বিরুদ্ধে টঙ্গিবাড়ী থানায় মামলা করলে পুলিশ ২ জনকে গ্রেফতার করেছে। শারমিনের বাচ্চাকে কোথায় কবে মাটি দিয়েছেন জানতে চাইলে সে জানায়, এখনো মাটি দেয়নি। বাড়ির ডিপ ফ্রিজে রেখে দিয়েছি যদি ম্যজিষ্ট্রেট দেখতে চায় । আমি এর সুষ্ঠ বিচার চাই।

এ ব্যাপারে টঙ্গিবাড়ী থানা ওসি হারুন-অর-রশিদ জানান, এ ঘটনায় ২ আসামীকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here