সীতাকুন্ড হাম্মদের মসজিদ

হাম্মদের মসজিদগোলাম আশরাফ খান উজ্জ্বল

সমুদ্র কন্যা চট্টগ্রাম। চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড উপজেলায় হাম্মদের মসজিদের অবস্থান। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পূর্ব দিকে মসজিদ্দা গ্রামে এটির অবস্থান। এ গ্রামেই ইতিহাসের সাক্ষী হিসেবে নিজের অস্তিত্বের জানান দিয়ে যাচ্ছে হাম্মদের মসজিদ। এটি সুলতানী শাসনামলের একটি মসজিদ।

শিলালিপি থেকে জানা যায় মসজিদ নির্মাতার নাম। হাম্মদের মসজিদের নির্মাতা হলেন সুলতান গিয়াস উদ্দিন মাহমুদ শাহ্। মসজিদের নির্মাণ সময় হলো ১৫৩৩ থেকে ১৫৩৮ খ্রিস্টাব্দে।

মসজিদের শিলালিপিতে “আল দুনিয়া ওয়াল দ্বীন আবুল মুজাফফর মাহমুদ এবং সুলতানের পুত্র সুলতান……..” লেখা রয়েছে। মসজিদটি খুবই চমৎকার স্থানে নির্মিত হয়েছিল। মসজিদ হতে সামান্য পূর্বে পাহাড় আর পাহাড় আর অল্প দূরেই সমুদ্রের বিশাল জলরাশি।

হাম্মদের মসজিদটি একটি প্রাচীন দীঘির পশ্চিম পাড়ে অবস্থিত। মসজিদের বাইরের দিকের পরিমাপ হলো ৬.৩৬ এবং ৬.৩৬ মিটার। ভিতরের দিকের আয়তন হলো ৪.২৬ মিটার এবং ৪.২৬ মিটার।

মসজিদের পশ্চিম দেয়ালে ৩টি মেহরাব রয়েছে। আর পূর্ব দেয়ালে ৩টি প্রবেশ পথ রয়েছে। মসজিদের চারকোণে ৪টি মিনার আছে। যেগুলো গোলাকৃতির।

মিনারগুলো ব্যাস ২.৭৭ মিটার। কিন্তু কেন্দ্রীয় মিনারের ব্যাস হলো ৩.২৫ মিটার। পূর্ব দেয়ালের প্রবেশ পথের পুরুত্ব ১.৭১ মিটার বা সাড়ে ৫ ফুট। মসজিদের ছাদে একটি বড় গম্বুজ রয়েছে। মসজিদটিতে পোড়ামাটির টেরামাটির টেরাকোঠার অলংকরণ ছিল।

যেমনটি আছে মুন্সীগঞ্জের বাবা আদম মসজিদ ও সোনারগাঁয়ের গোয়ালদী মসজিদ। হাম্মাদের মসজিদের কেন্দ্রীয় মেহরাব বাইরে থেকে দেখতে গোলাকার। মসজিদটি শুধু চট্টগ্রামের নয় বাংলাদেশের ইতিহাসের একটি অংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here