চরকেওয়ারে ককটেলে শিকার ৭ দিনের শিশু

 

124199733_484695252476692_68965895727863560_n

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার চরকেওয়ার ইউনিয়নের খাসকান্দি গ্রামের ককটেলের হিংস্রতায় শিকার হয়েছেন ৭ দিনের এক শিশু। ককটেল বিষ্ফোরণের শব্দে ভয়ে শিশুটি এখন প্রায় নিশ্চুপ। শিশুটির নাম মো. ওবায়দুল্লাহ্। সে ছোট মোল্লাকান্দি গ্রামের খোরশেদ বেপারীর ছেলে। শিশুটির মায়ের নাম রিতা আক্তার। ঘটনার দিন ছেলে শিশুটিকে নিয়ে খাসকান্দি গ্রামে তার পিতা কালু ঢালী বাড়ির অবস্থান করছিল রিতা আক্তার।

জানা যায়, গত শনিবার চরকেওয়ার ইউনিয়নের খাসকান্দি ও ছোট মোল্লাকান্দি গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের মধ্যে পাল্টাপাল্টি সংঘর্ষে তিন জন আহত হয়। এসময় খাসকান্দি গ্রামের ২০টি বাড়ি ও ভেতরের আসবাবপত্র ভাংচুর হয়। কয়েক দফায় বিষ্ফোরণ ঘটানো হয় ককটেল।

124663485_382094389705999_2759322706978495569_nশিশু ওবায়দুল্লাহ্’র মা রিতা আক্তার জানায়, হামলার ওই দিন আমার ছেলের বয়স ছিল ৭ দিন। তাকে নিয়ে খাটের উপর বসে ছিলাম। কিছু বুঝে উঠার আগে হঠাৎ ঘরের চালের উপর একটি ককটেল বিষ্ফোরনের বিকট শব্দে আমার ছেলে সহ বাড়ির সবাই আতকে উঠি।

শুধু তাই নয় এছাড়াও বাড়ির আশেপাশে ৩-৪ টি ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটানো হয়। সেই দিন থেকে আমার অবুঝ ছেলেটি কোনো প্রকার নড়াচরা করছেনা। বুকের দুধ পান করছে না। এখন প্রায় নিশ্চুপ। কিছুদিন পর পর চরাঞ্চলে এমন সহিংসতায় সুশীল সমাজের ব্যাক্তিবর্গ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, চরাঞ্চলের সংঘর্ষ থামবে কবে?। এমন সহিংতায় হতাহতের শিকার হচ্ছে শিশু থেকে শুরু করে নিরীহ সাধারণ মানুষ। লুটপাট করা হচ্ছে বাড়িঘরে। অহরহ ঘটছে বাড়িঘর ভাংচুরের ঘটনাও। এমন ঘটনায় আতংকে দিন কাটছে খাসকান্দি গ্রামের মানুষদের।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ওসি মো. আনিচুর রহমান জানান, চরাঞ্চলের দুগ্রুপের সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত দু’পক্ষ থেকে ৪টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশের অভিযানের ভয়ে গ্রামে এখন পুরুষ শূণ্য হয়ে পড়েছে। আমরা জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here