রামপালের শাখারী বাজারে শব্দ দূষণে অতিষ্ঠ গ্রামবাসী

logo png-full-sizeমোহাম্মদ সেলিম:

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার রামপাল ইউনিয়নের শাখারী বাজার গ্রামের মানুষেরা শব্দ দূষণে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। ঘন বসতি আবাসিক এলাকায় মিনি গার্মেন্স গড়ে উঠায় এখানে শব্দ দূষণের মাত্রা দিন দিন বেড়েই চলেছে।

আর এর সাথে পাল্লা দিয়ে এখানে ভারি শিল্প কারখানার এম্রবোটারী মেশিন বসানোর কারণে শব্দের পরিমাণ কয়েক গুন বেড়ে গেছে বলে গ্রামবাসী মনে করছেন।

আর তাতে এখানে নিত্য দিনের কাজের মধ্যে স্কুল পড়ুয়াদের পড়ালেখা মারাত্নকভাবে অসুবিধা দেখা দিয়েছে বলে অনেকেই অভিযোগ করেছে।

এছাড়া শব্দের কারণে বাড়িতে থেকে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়তেও দেখা দিয়েছে নানা রকমের অসুবিধা। আর এখানে প্রথমবারের মতো সোচ্চার হয়ে উঠেছেন এই গ্রামের পঞ্চায়াত কমিটির সহ সভাপতি হাজী মো: শাহ আলম।

এখানকার লাগামহীন শব্দ দূষণ বন্ধ করতে হাজী মো: শাহ আলম ইতোমধ্যে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে দৌড়ঝাপ শুরু করে দিয়েছেন।

জানা যায়, রোজার ঈদকে সামনে রেখে কয়েক মাস আগে শাখারী বাজার গ্রামের মৃত মোবারক খলিফার পুত্র মো: আমির হোসেন থ্রী এঙ্গেলের বড় মাপের তিনটি পুরানো এম্রবোটারী মেশিন এখানে বসান বলে অভিযোগ উঠেছে।

এখানকার মেশিনগুলো অনেকটাই পুরানো বলে এর শব্দের পরিমাণও অনেক বেশি বলে এখানকার গ্রামবাসী অভিমত প্রকাশ করেছেন। দিনের সময়ে এখানে একটি মেশিন চালু থাকলেও রাতে তিনটি মেশিন একাধারে চলতে থাকে।

তখন শব্দের পরিমাণ আরো বেড়ে যায় বলে শোনা যাচ্ছে। আর এসব শব্দের কারণে কারখানার আশপাশেরর লোকজন তেমনটা ঘুমাতে পারে না অভিযোগ তুলে ধরেছেন।

এ ধরণের কারখানা তৈরির আগে সরকারিভাবে কিছু নিয়ম কানুন মেনে তবেই কারখানা তৈরি করতে হয়। যেমন এখানকার ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ট্রেড লাইসেন্স নিতে হয়। পরিবেশ অধিদপ্তর ও স্থানীয় ফায়ার সার্ভিস

থেকে নো অবজেকশন পত্র নেয়ার বিধান রয়েছে। কিন্তু কারখানার মালিক মো: আমির হোসেন এর কোনটাই করেন নাই বলে এ প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।

সকল ধরণের কাগজপত্র ছাড়াই এখানে গড়ে উঠেছে এ ধরণের মিনি শিল্প কারখানা। আর তাতে ঘন বসতি এলাকার মানুষ শব্দ দূষণে বর্তমানে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে।

এছাড়া ঘন বসতি এলাকায় এ ধরণের মিনি কারখানা গড়ে উঠার কোন নিয়ম নেই সরকারিভাবে। ভুক্তভোগি গ্রামবাসীরা এ বিষয়ে সরকারের উর্ধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here