মুন্সীগঞ্জের মুক্তারপুরে মিশুক নিয়ে উধাও দুবৃত্তরা (ভিডিওসহ)

dav
dav

মোহাম্মদ সেলিম:

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের মুক্তারপুর থেকে একদল দুবৃত্ত রিফাতের মিশুক ভাড়া নিয়ে যায় নারায়াণগঞ্জে। সেখানকার চাষাড়া এলাকায় কফির সাথে নেশা জাতীয় খাবার খাইয়ে রিফাতকে অজ্ঞান করে মিশুক নিয়ে যায় একদল দুবৃত্তরা।

এ ঘটনায় রবিবার রিফাত এ বিষয়ে মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। রিফাত রবিবার মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল থেকে রিলিজ নিয়েছেন। সে দুইদিন অচেতন অবস্থায় ছিল। রবিবার থেকে সে অনেকটাই সুস্থ। রিফাতের আয়ের উৎস্য দিয়ে তার পরিবারের সংসার চলে।

রিফাতের (২২) বাড়ি হচ্ছে পঞ্চসার ইউনিয়নের পুরাতন সরকার পাড়া। তার পিতার নাম হচ্ছে আলমগীর।
মামলার আর্জি সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় সাহাবুদ্দিন (২৬)কে এ মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে। তার পিতার নাম হচ্ছে পিতা মোহন পোদ্দার। এর সাথে আরো তিনজন অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে তিনজনকে।

গত ২৬ মার্চ বিকেল তিনটার দিকে অভিযুক্তরা রিফাতের মিশুক নিয়ে নারায়ণগঞ্জে যায়। সেখানে প্রথমে পপুলারে একজন মহিলা নেমে যান। এরপর সেখান থেকে অভিযুক্তরা মিশুক নিয়ে চাষাড়া যায়। সেখানে তারা কফি খাওয়ার আয়োজন করে। অভিযুক্তরা সেখানে রিফাতকে কফি খেতে বলেন।

স্থানীয়ভাবে সাহাবুদ্দিন রিফাতের পরিচিত থাকায় রিফাত সেখানে খায়। এরপর কয়েক মিনিটের পর রিফাত সেখানে অজ্ঞান হয়ে পরেন। লোক মারফত খবর পেয়ে রিফাতকে নারায়নগঞ্জ থেকে উদ্ধার করেন মিশুকের মালিক মো: সাগর পোদ্দার। পরে তাকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বিগত ৮ মাস আগে স্থানীয় মিন্টুর একটি গাড়ী নিয়ে যায় শাহাবুদ্দিন। এ ঘটনায় সে গ্রেফতার হয় বলে জানা গেছে। শাহাবুদ্দিনের বিরুদ্ধে মুন্সীগঞ্জ থানায় মাদক মামলা রয়েছে।

মুক্তারপুরে মিশুকের মালিক মো: সাগর পোদ্দার মাত্র এক মাস আগে তিনটি মিশুক নিয়ে ব্যবসা শুরু করেন। একটি মিশুক চালাতো রিফাত। তিনি বলেন, এখানে একেকটি মিশুক ৯০ হাজার ৫শ’ টাকা করে নির্মাণ খরচ পড়েছে। তার মিশুক চুরি হওয়ায় তিনি মুষড়ে পড়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here