শ্রীনগরে দুটি হত্যা মামলার আসামী কৃষক লীগ নেতার হুমকীতে ৩ মাস ধরে এলাকা ছাড়া একটি পরিবার!

 

ajgor ali 2১০ জুলাই ২০১৭ (মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডেস্ক) :  শ্রীনগরে এক ইউনিয়ন কৃষক লীগ সভাপতির হুমকিতে ৩ মাস ধরে এলাকা ছাড়া হয়ে আছে দরিদ্র একটি পরিবার। প্রকাশ্য দিবালোকে পিটিয়ে হত্যা সহ দুটি হত্যা মামলার আসামী উপজেলার বীরতারা ইউনিয়ন কৃষক লীগ সভাপতি আজগর আলী ওরফে মেন্দী মাদবর (৫৫) এর হুমকির কারনে এলাকা ছেড়ে ওই পরিবারটি এখন মানবেতর জীবন যাপন করছে। জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে আদালতে মামলা করার কারনে পরিবারটির উপর আরো বিপর্যয় নেমে এসেছে।

স্থানীয়রা জানায়, পরিবারটির কর্তা ব্যক্তি আ ঃ হাকিম ওরফে কান্দু (৫০) এর অপরাধ সে ওই এলাকার সংখ্যা লঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের একটি পরিবারের বিক্রি করা জমির দলিলে সাক্ষী হয়েছেন।
আ ঃ হাকিম কান্না জড়িত কন্ঠে জানান, এলকার প্রভাবশালী ওই নেতা ও তার সাঙ্গপাঙ্গদের ক্রমাগত হুমকির কারনে নিজের ভিটে বাড়িতে ঈদের মতো উৎসব করা থেকে তার সন্তানরা বঞ্চিত হয়েছেন। দীর্ঘদিন ধরে এলাকা ছেড়ে থাকার কারনে তার সন্তান ও পরিজনরা বঞ্চিত হচ্ছেন লেখা পড়ার সুযোগ থেকে।
তিনি জানান, শ্রীনগর ভমি অফিসের নামজারি কৃত হিন্দু ওয়ারিশিয়ান সম্পত্তির বিক্রি করা দলিলের সাক্ষী হওয়ার কারনে আজগর আলী তার লোকজন নিয়ে তিন মাস পূর্বে তাকে প্রথমে এলাকা ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দেয়। আজগর আলীর নির্দেশ অমান্য করে তিন চার দিন নিজ বাড়িতে বসবাস করতে থাকায় তাকে দ্বিতীয় দফায় বীরতারা বাজারে প্রকাশ্য দিবালোকে পিটিয়ে হত্যা করা আওয়ামী লীগ নেতা শাহজাহানের উদাহরণ টেনে বলা হয় এলাকা না ছাড়লে তার পরিনতিও শাহজাহানের মতোই হবে।
দ্বিতীয় বার হুমকির পর আ ঃ হাকিম প্রাণ ভয়ে রাতের আধারে এলাকা ছেড়ে আসেন। নিরুপায় হয়ে তিনি হুমকিদাতাদের বিরুদ্ধে মুন্সিগঞ্জ আদালতে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে দায়িত্ব দেন। উপজেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে যেন কেউ সাক্ষী না দেয় এজন্য মামলায় মানিত সাক্ষীদেরও হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মূলত সংখ্যা লঘুদের ঐ সম্পত্তি গ্রাস করতে না পেরেই আজগর আলী আক্রোশ থেকে পরিবারটিকে এলাকায় ফিরতে দিচ্ছেনা।
বিএনপি থেকে পল্টি দিয়ে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে যোগ দেওয়া কৃষক লীগের এই নেতা এলাকার আলোচিত শাহজাহান হত্যা মামলার আসামী। সূত্র জানায়, ওই মামলায় আজগর আলী সাত বছরের সাজা প্রাপ্ত আসামী হলেও অদৃশ্য শক্তিতে এখনো এলাকা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। শাহজাহান হত্যা ছাড়াও তার বিরুদ্ধে একই এলাকার মান্না হত্যার অভিযোগও রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান।
এব্যাপারে বীরতারা ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি আজগর আলী জানান, হুমকির দিয়েছি কিনা তা তদন্তেই প্রমানিত হবে। হত্যা মামলা দুটি নিস্পত্তি হয়ে গেছে বলে তিনি দাবী করেন।
শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ এসএম আলমগীর হোসেন বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। কেউ অভিযোগ দিলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here