সিরাজদিখান প্রাণি সম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রের সবাই এখন ডাক্তার! পিয়ন রফিকুল ইসলামের ভুল চিকিৎসায় গরুর মৃত্যু

sirprani12345

শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম: সিরাজদিখান প্রাণি সম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রের সবাই এখন ডাক্তার! পিয়ন রফিকুল ইসলামের ভুল চিকিৎসায় গরুর মৃত্যু হয়েছে। এ ব্যাপারে গরুর মালিক আউয়াল গাজী বুধবার উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এলাকাবাসী অনেকে জানান, রফিকুল একজন নেশাখোর। সন্ধ্যার পর অফিসের ছাদে নেশার আড্ডা বসায়। তাছাড়া এই অফিসের ডাক্তাদের সহযে পাওয়া যায় না। এ কারণে মাঠ কর্মী অফিস, সহকারি তারা এখন ডাক্তার সেজেছে। আবার অনেকের সাথে একজন করে এলাকার লোক রাখে তারা নাকি কম্পাউন্ডার। নানা কারণে এলাকার গরু-ছাগল, হাঁস-মুরগী খামারিরা সেবা বঞ্চিত হচ্ছে।

উপজেলার বয়রাগাদী গ্রামের আউয়াল গাজী জানান, ১ লা বৈশাখের দিন আমি পশু হাসপাতালে যাই, অফিসে লোক না থাকায় অপেক্ষা করি এর পর ঐ পিয়ন আসে। তাকে ডাক্তারের কথা জিজ্ঞেস করলে সেই ডাক্তার বলে। আমি তো চিনিনা কে ডাক্তার কে পিয়ন। আমি তাকে জানাই আমার ষাড় গরুটির মুখে ঘা হয়েছে কিছু খেতে পারে না। সে বলে রোগী না দেখে ব্যবস্থা দেওয়া

যাবে না। আমি তাকে নিয়ে বাড়িতে যাই। গরুটি দেখে সে ইনজেকশন ও খাওয়ার কিছু ওষুধ দিয়ে ২ হাজার টাকা চায়, আমি ৭শত টাকা দেই। এরপর ২ দিনে গরুটি আরো অসুস্থ হয়ে পরলে মঙ্গলবার তাকে আবার ফোন করি, সে এসে ৪ টা ইনজেকশন ও আরো ওষুধ দেয়। আবার ৩ শত টাকা দেই। বাকি টাকা পরে দিব বলি। সে চলে যায। কিছুক্ষন পর গরুটি ঘার ঘুরিয়ে পরে

মারা যায়। ৫৫ হাজার টাকা দিয়ে গরুটি কিনে ছিলাম। এ ঘটনার পর আমি পশু হাসপাতালে গেলে জানতে পারি সে ডাক্তার না আফিস পিয়ন। তখন আমি কর্মকর্তাকে লিখিত ভাবে ঘটনাটি জানাই। তার ভুল চিকিৎসায় আমার গরুটি মারা যায়।

উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিস পিয়ন রফিকুল ইসলাম বলেন, এখানে সবাই ডাক্তার। সবাই চিকিৎসা করে, আমি করতে পারব না কেন? আমার অনেক অভিজ্ঞতা আছে। আউয়াল গাজী আমাকে ১ হাজার টাকা দিয়াছে। গরু মারা গেছে তাই বাকি টাকা চাই নাই।

উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. হাসান আলী ঘটনার সত্যত্যা স্বীকার করে জানান, অফিস সহায়ক রফিকুল ইসলাম আমাকে না জানিয়ে সে এ কাজ করেছে। গরুর মালিক আউয়াল গাজী লিখিত অভিযোগ করেছেন। আমি বিষয়টি ঢাকা হেড অফিসের সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষকে জানিয়েছি। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here