টঙ্গীবাড়িতে সন্ত্রাসীদের হামলায় মিজানুর রহমান আহত: থানায় মামলা

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম: টঙ্গীবাড়ি সন্ত্রাসীদের হামলায় মিজানুর রহমান গুরুতর আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, টঙ্গীবাড়ীতে প্রায় ১০-১৫জনের সন্ত্রাসীদের সাথে নিয়ে অতর্কিত ভাবে হামলা চালায়।

আহত ছেলের মা মোসা: নাছিমা বেগম বাদী হয়ে রিয়াজ কাজীকে প্রধান আসামী করে ১১জনকে আসামী করে টঙ্গীবাড়ী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এ বিষয়ে মোস্তফা মেম্বার একটি অভিযোগ টংগীবাড়ি থানায় দায়ের করেছেন।

মামলার এজহার থেকে জানা যায়, বাকী আসামীরা হলো সাদ্দাম হোসেন কাজী (৩০) রিয়াজ কাজীর ভাই উভয় পিতা মেহের আলী কাজী, মুন্না হালদার (২২) পিতা মালেক হালদার, জীবন (২২) পিতা শাহাবুদ্দিন, সাকিল সিকদার (২৫) পিতা আবারেক সিকদার, জুয়েল সিকদার (২৫) পিতা আবারেক সিকদার, কাউছার (১৮) পিতা আবুল কাশেম দেওয়ান, শরিফ দেওয়ান (১৮)

পিতা শহিদ দেওয়ান, আশিক শেখ (২৩) পিতা আউলাদ শেখ, তপু বেপারী (২৫) পিতা ফারুক বেপারী, পায়েল মাঝি (১৮) পিতা নুরুল হক মাঝি।

১৬ এপ্রিল (সোমবার) রাত ৮টার সময় টঙ্গীবাড়ি বাজার থেকে বাস যোগে নিজ বাড়ী বাড়ৈপাড়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়ে মারিয়ালায় নতুন মসজিদের সামনে আসার সাথে সাথে বাস থামিয়ে মিজানুর রহমানকে নামিয়ে এলোপাথারি পিটিয়ে আহত করে।

পরবর্তীতে তপু বেপারী হুকুম দিলে প্রধান আসামী রিয়াজ কাজী খুর দিয়ে হার্ট বরাবর পোচ দিলে মেরুদন্ডের হাড় বেরিয়ে যায়। মিজানুর রহমানের আত্মচিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

স্থানীয় মেম্বার মোস্তফা তাকে উন্নত চিকিত্সার জন্য এম্বুলেন্সে করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পাঠিয়ে দিয়েছেন।

মিজানুর রহমান কাজী এন্টারপ্রাইজ প্রো: কাজী কবির হোসেনের ম্যানেজার, কাজী মার্কেট ২য় তলা টঙ্গীবাড়ীতে ছেলেটি চাকুরী করে।

সূত্র: মুন্সিগঞ্জ ক্রাইম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here