সৌদী প্রবাসী শাহ আলম মাদবরের মাদবরিতে মুন্সিগঞ্জের নববধু গৃহহারা: স্বামীর অধিকার আদায়ে অনশনে..

শুক্রবার, ১২ অক্টোবর ২০১৮, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম:

Sah Jalal

৩ মাস ধরে স্বামীর অপেক্ষা করে হতাশ নব বধু হাসি আক্তার। নব বধুকে বাড়িতে পাঠিয়ে ঢাকায় বসবাস করে স্ত্রীকে চলে যাওয়ার জন্য হুমকি ধমকি দিয়ে বাড়ি ছাড়া করতে চাচ্ছে স্বামী শাহ জালাল মাদবর।

বৃহস্পতিবার বিকালে রতনপুর মাদবরবাড়ী গিয়ে দেখা যায় নববধু হাসি আক্তার (২৩) স্বামীর অপেক্ষায় অসহায়ের মতো দরজায় বসে রয়েছে।

Madbar Bari (2)শাহ জালালের আপন চাচা সৌদি প্রবাসী শাহ আলম মাদবর বিষয়টির সুরাহা করতে আসলেও তিনি ভাতিজার জমি গ্রাস করার জন্য ভাতিজার স্ত্রী হাসি আক্তারকে বিভিন্নভাবে হয়রানী করে আসছে।

কাজে মাদবর না হলেও খারাপ কাজের মাদবর হিসেবে পরিচিত মাদবর বাড়ীর শাহ আলম মাদবর। মাদবর বাড়ীর একটিই বৈশিষ্ট্য সকলে দুইটি বিবাহ করেন। সৌদী প্রবাসী শাহ আলম মাদবরের মাদবরীতে মুন্সিগঞ্জের নববধু গৃহহারা হতে বসেছে॥ স্বামীর অধিকার আদায়ে অনসনে শশুরবাড়ী হাসি আক্তার।

সৌদি প্রবাসী শাহজালাল শরীয়া মোতাবেক সামাজিকভাবে বিবাহ করেছিলেন হাসি আক্তারকে (২৩)। ২ বছর পূর্বে ২০১৬ সালের জানুয়ারী মাসের ১২ তারিখে টঙ্গীবাড়ি থানার কাঠাদিয়া শিমুলিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম আলদি গ্রামের কাসেম সিকদার ও রানু বেগমের মেয়ে হাসি আক্তারের সাথে মৃত সুলতান মাদবর ও মাতা সালেহা বেগমের ছেলে শাহজালালের সাথে বিবাহ হয়।

Madbar Bari (1)সামাজিকভাবে ৪ লাখ টাকা মোহরানা ধার্য্য করে এই বিবাহ হয়। বিবাহ হওয়ার পর গত রমজান মাসের পরে বাংলাদেশে আসে শাহ জালাল। পরে শাহজালাল মাদবরের স্ত্রী হাসি আক্তারকে নিয়ে ঢাকার কালিগঞ্জে ২২দিন ভাড়া বাসায় বসবাস করে। পরবর্তীতে শাহ জালাল মাদবর ছলচাতুরীর মাধ্যমে স্ত্রী হাসি আক্তারকে তার নিজ বাড়ী সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের রতনপুর গ্রামের মাদবর বাড়ীতে পাঠিয়ে দেয়।

হাসিকে বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়ে এখন তার সাথে আর ভালো ব্যবহার করছে না। অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে বাড়ি থেকে মেয়ের বাবার বাড়ী চলে যাওয়ার জন্য হুমকি ধমকি প্রদান করে আসছে। ৩ মাস ধরে মেয়েটির শশুরবাড়ী স্বামীর অপেক্ষায় অপেক্ষামান। স্বামী শাহজালাল ৪ভাই ৪ বোন।

তার চাচা শাহ আলম মাদবর বিষয়টির মিমাংস করবেন বলে আশ্বাস দিলেও তার কোন পদক্ষেপ পরিলক্ষিত হচ্ছে না। বিচারের দিন ধার্যকরে সে বাড়ি থেকে চলে যায়। এভাবে অসহায় মেয়েটি ৩মাস ধরে খেয়ে না খেয়ে বসবাস করছে স্বামীর বাড়ীতে।

নববধু হাসি আক্তার জানান, তার স্বামী সৌদি আরব থেকে রমজান মাসের পরে বাংলাদেশে এসে তাকে নিয়ে ঢাকার একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করা শুরু করে। ২২ দিন রেখে তাকে স্বামীর নিজ বাড়ি রতনপুর পাঠায়। পরবর্তীতে তাকে নিয়ে তার স্বামী শাহজালাল আর সংসার করবে না বলে মোবাইলে হুমকি প্রদান করে। দুইদিন পূর্বেও তাকে বিশ্রি ভাষায় গালিগালাজ করে।

শশুরবাড়ীর লোকজন ও তার স্বামীর ভাই-ভাবীরাও কোন সহযোগিতা করছে না তাকে। হাসি আক্তার শশুরবাড়ীতে খেয়ে না খেয়ে দিনতিপাত করছে। কেবলমাত্র তার স্বামীর অধিকার আদায়ের জন্য। হাসি আক্তার আরো বলেন, তার জীবন শেষ করে এখন বলছে তাকে নিয়ে সংসার করবে না। এটা সব তার ভাই ও চাচা শাহ আলম মাদবরের কারসাজি।

Sahjalalশাহ জালালের বোন নার্গিস বেগম ঢাকার বাসায় বসবাস করেন। সেখানে থেকেই স্ত্রীকে যেন তেনভাবে বাড়ি থেকে সরিয়ে দিতে চাইছেন স্বামী শাহ জালাল। ০১৭১৬৩৬৪৭২৪ এই নাম্বারে ফোন দিলে শাহজালালের বোন নার্গিস আক্তার জানান, শাহজালাল কাজে গেছে বাসায় নেই। অপরদিকে শাহজালালের মোবাইল নাম্বার ০১৯১৫৬৬৯০৯৮ বন্ধ রেখেছে।

এদিকে শাহ আলম মাদবর তার নিজস্ব নাম্বার ০১৯০৩৪৮৫৬৯৪ ফোন দিলে তিনি ফোনটি কেটে দেন। সৌদি আরব থেকে হাসি আক্তারের বিষয়ে সমাধানের জন্য এসে তিনি মিমাংসা না করে নববধু হাসিকে বিভিন্নভাবে হয়রানী করে জীবন নাশের হুমকি প্রদান করে আসছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here