মুন্সিগঞ্জে সনাকের উদ্যোগে মানববন্ধন

বৃহস্পতিবার, ২৯ নভেম্বর ২০১৮, মুন্সিগঞ্জ নিউজ ডটকম:

2

গতকাল বুধবার ২৮ নভেম্বর ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র অনুপ্রেরণায় গঠিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) মুন্সীগঞ্জের উদ্যোগে সকাল ৯:৩০ টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমির সামনে এক মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এ মানববন্ধন কর্মসূচির মাধ্যমে আসন্ন জলবায়ু সম্মেলনে (কপ-২৪) প্যারিস চুক্তি বাস্তবায়নে স্বচ্ছতা কাঠামো সম্বলিত চূড়ান্ত রূপরেখা প্রণয়ন এবং প্রতিশ্রুত জলবায়ু অর্থায়নে দৃশ্যমান অগ্রগতি ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার দাবী জানানো হয়।

মানববন্ধনে বক্তাগণ উল্লেখ করেন যে, জলবায়ু পরিবর্তনের সর্বাধিক ক্ষতিগ্রস্ত দেশসমূহের মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। বৈশি^ক জলবায়ু পরিবর্তন রোধে বিশে^র ১৯৭টি দেশ ২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত কপ ২১ সম্মেলনে প্যারিস চুক্তিতে সম্মত হলেও কার্বন নিঃসরণ ও বৈশ্বিক উষ্ণায়ণের জন্যে দায়ী শিল্পোন্নত দেশগুলো জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত এবং ঝুঁকির সম্মুখীন দেশসমূহকে ক্ষতিপূরণ বাবদ প্রতিশ্রুত অর্থ প্রদানে প্রথম থেকেই গড়িমসি করছে।

aahar-bilas

তারা জানান যে, জলবায়ু অর্থায়ন এবং তার ব্যবহারে স্বচ্ছতা ও শুদ্ধাচার নিশ্চিতে সনাক এবং টিআইবি ২০১১ সাল হতে ধারাবাহিকভাবে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন অংশীজনের সাথে গবেষণা-ভিত্তিক সুপারিশ বাস্তবায়নে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে। টিআইবি জলবায়ু অর্থায়ন সংক্রান্ত তার গবেষণা লব্ধ সুপারিশ বাস্তবায়নে সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়, বিসিসিটিএফ, কম্পট্রোলার এন্ড অডিটর জেনারেল এর অফিসসহ বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের সাথে অধিপরামর্শ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এর ফলে জলবায়ু অর্থায়নে সুশাসন নিশ্চিতে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতির পাশাপাশি ইতিমধ্যে টিআইবি প্রণীত জলবায়ু প্রকল্প তদারকি কৌশল এবং সামাজিক নিরীক্ষা টুল কেনিয়া, মালদ্বীপ, নেপাল, রুয়ান্ডা ও মেক্সিকোতে প্রয়োগ করা হচ্ছে।

এ প্রেক্ষিতে বাংলাদেশসহ বিশ^ব্যাপী ঝুঁকিতে থাকা ক্ষতিগ্রস্ত দেশসমূহের কোটি কোটি মানুষের স্বার্থে আসন্ন কপ-২৪ সম্মেলনে টেকসই উন্নয়নে জলবায়ু অর্থায়নে দৃশ্যমান অগ্রগতি, ন্যায্যতা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিতে প্যারিস চুক্তি বাস্তবায়নে স্বচ্ছতা কাঠামো সম্বলিত রূপরেখা চূড়ান্ত করার ক্ষেত্রে বাংলাদেশসহ প্যারিস চুক্তিতে সাক্ষরকারী দেশসমূহের সংশ্লিষ্ট অংশীজনের বিবেচনার জন্য সনাক-টিআইবি’র পক্ষ থেকে উক্ত মানববন্ধনের মাধমে নীম্মলিখিত দাবীসমূহ তুলে ধরা হয়-

১. প্যারিস চুক্তির আওতায় জলবায়ু অর্থায়নে উন্নত এবং উন্নয়নশীল উভয় শ্রেণির দেশের জন্য আইনী বাধ্যতামূলক, একটি ‘‘স্বচ্ছতা কাঠামো” অবলম্বন করে সংশ্লিষ্ট সকল অংশীজনের শুদ্ধাচার ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে;

২. দূষণকারী কর্তৃক ক্ষতিপূরণ প্রদান নীতি বিবেচনা করে ঋণ নয়, শুধু সরকারি অনুদান, যা উন্নয়ন সহায়তার ‘অতিরিক্ত’ এবং ‘নতুন’ প্রতিশ্রুতির স্বীকৃতি দিয়ে জলবায়ু অর্থায়নের সংজ্ঞায়ন করতে হবে এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশসহ ক্ষতিগ্রস্ত দেশসমূহকে প্যারিস চুক্তির আওতায় দূষণকারী উন্নত দেশসমূহ কর্তৃক প্রতিশ্রুত ১০০ বিলিয়ন ডলার (প্রতি বছর) প্রদান আগামী ২০২৫ সাল পর্যন্ত অব্যাহত রাখতে হবে ;

৩. জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট ১৩ এর আওতায় জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় প্রতিশ্রুত তহবিল প্রদানের ব্যাপারে শিল্পোন্নত দেশসমূহ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। তাই আসন্ন কপ-২৪ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর স্বার্থ নিশ্চিতে উন্নত দেশগুলো হতে প্রয়োজনীয় সম্পদ (জলবায়ু তহবিল, প্রযুক্তি হস্তান্তর এবং কারিগরি সহায়তা) সরবরাহের জোর দাবি উত্থাপন করতে হবে;

৪. জলবায়ু-তাড়িত বাস্তুচ্যুতদের পুনর্বাসন, কল্যাণ এবং অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি নিশ্চিতে সবুজ জলবায়ু তহবিল (জিসিএফ) এবং অভিযোজন তহবিল থেকে বিশেষ তহবিল বরাদ্দ নিশ্চিত করতে হবে;

৫. জিসিএফ এর ট্রাস্টি বোর্ডের কাঠামো পুনর্গঠনের মাধ্যমে একটি সমতা-ভিত্তিক প্রতিনিধিত্বমূলক এবং কার্যকর ট্রাস্টি বোর্ড গঠন এবং ক্ষতিগ্রস্ত দেশসমূহের অভিযোজন কার্যক্রমে অনুদানকে অগ্রাধিকার প্রদান করতে হবে।

উক্ত মানববন্ধন কর্মসূচিতে মুন্সিগঞ্জ সনাকের সভাপতি এ্যাড. মো: হুমায়ুন কবীর শাহীন, সহ-সভাপতি জাহানারা বেগম, সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী আকবর মিলন, মো: শাহজাহান গাজী, নূরুন্নবী মুন্না, টিআইবি’র এরিয়া ম্যানেজার মো: রাশিদুজ্জামান (লিটন), স্বজন, ইয়েস ও ইয়েসফ্রেন্ডস সদস্যদের পাশাপাশি মুন্সিগঞ্জের বিভিন্ন পেশাজীবি ও সামাজিক সংগঠনের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার প্রতিনিধিগণ অংশগ্রহণ করেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here