করোনাকে উপেক্ষা করে শিমুলিয়া ঘাটে মানুষের উপচে পড়া ভিড়

তাইজুল ইসলাম রাকীব: মুন্সীগঞ্জের শিমুলয়া ঘাটে যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌ-রুট দিয়ে ফেরিতে করে পদ্মা পার হচ্ছে শত শত গার্মেন্টকর্মী। করোনার কারণে লঞ্চ-স্পিডবোট বন্ধ থাকায় এসব যাত্রীরা বাধ্য হয়ে ফেরিতে করেই পদ্মা নদী পাড় হচ্ছে।

গতকাল বুধবার সকাল থেকে এসব যাত্রীদের কাঁঠালবাড়ি ঘাট থেকে ফেরিতে করে শিমুলিয়া ঘাটে এসে ঢাকার উদ্দেশে যেতে দেখা গেছে। গণ পরিবহন বাস চালু না থাকায় বিকল্প পরিবহনে তারা ছুটছেন ঢাকার উদ্দেশ্যে। গতকাল বুধবার সকালে শিমুলিয়া ঘাটে দিয়ে শত শত যাত্রী দক্ষিণবঙ্গ থেকে ঢাকায় ফিরছে।

এসব যাত্রীর অধিকাংশই গার্মেন্টকর্মী। তারা দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন এলাকা থেকে বিকল্প যানবাহনে করে কাঁঠালবাড়ি ঘাটে আসছে। সেখান থেকে ফেরিতে করে শত শত যাত্রী পদ্মা পাড়ি দিয়ে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাটে আসছে। করোনার কারণে যাত্রীবাহী পরিবহন বা বাস বন্ধ থাকায় এসব যাত্রী বিকল্প যানবাহনে ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় গন্তব্যে ছুটছে।

বিকল্প যানবাহনের মধ্যে রয়েছে, অটোরিকশা, ইয়েলো ক্যাব, রেন্ট-এ-কার, নসিমন, মাইক্রোবাস ও পিকআপ ভ্যানসহ লোকাল নানা ধরনের যানবাহন। মাওয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ সিরাজুল কবির জানান, সকালে থেকেই ফেরিতে করে শত শত লোক আসছে শিমুলিয়া ঘাটে। তাদের অধিকাংশই গার্মেন্টকর্মী।

মাওয়া ট্রাফিক পুলিশের ইনচার্জ টিআই হিলাল উদ্দিন জানান, বুধবার সকাল থেকেই শত শত গার্মেন্টকর্মী দক্ষিণবঙ্গ থেকে ঢাকার উদ্দেশে ফেরিতে পদ্মা পার হয়ে শিমুলিয়া ঘাটে আসছে। এখান থেকে বিকল্প যানবাহনে তারা গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা হচ্ছে।

এদের অধিকাংশই গার্মেন্টকর্মী। তিনি আরো জানান, বর্তমানে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌ-রুটে দিনের বেলায় ৬টি ফেরি চলাচল করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here