জয়পুরহাটে করোনা সন্দেহে বাস থেকে ফেলে যাওয়া সেই লাশের রিপোর্ট নেগেটিভ

জয়পুরহাটে করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে এক ব্যক্তির লাশ নিয়ে তার মাকে সড়কের পাশে ফেলে যাওয়া সেই মিজানের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। গত রোববার রাতে ঢাকার একটি ল্যাব থেকে আসা রিপোর্ট গতকাল সোমবার সকালে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান জেলা সিভিল সার্জন (সিএস) মো. সেলিম মিয়া।

এর আগে, নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার জাহানপুরের বাসিন্দা মিজানুর রহমান কোমরের ব্যথা নিয়ে চিকিৎসা করাতে গিয়েছিলেন ঢাকায়। সেখানে একটি গার্মেন্টসে চাকরি করেন তার স্ত্রী। চিকিৎসা শেষে মাকে নিয়ে ঢাকার বিশ মাইল থেকে ২ হাজার টাকা চুক্তিতে ১১ মে রাতে তিনি আহাদ পরিবহনের একটি বাসে করে জয়পুরহাটে রওনা দেন।

পথিমধ্যে মিজানুর রহমান মারা যান। তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর রাতের অন্ধকারেই জয়পুরহাট-বগুড়া মহাসড়কের হিচমী বাজারে মা-সহ ছেলের লাশটি ফেলে রেখে চলে যায় আহাদ পরিবহনের চালক ও হেলপার।

এরপরই স্থানীয়রা জানতে পেরে প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগকে খবর দেয়। পরে নিহত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পাঠানোর পর ধামইরহাটে পাঠিয়ে দেয় উপজেলা প্রশাসন।

এরপর ১২ মে) সেই বাসটি পাঁচবিবি উপজেলার বাগজানা থেকে জব্দ করে পুলিশ। অবশেষে ১৫ দিন পর গত রোববার রাতে সেই মিজানুর রহমানের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here