টাঙ্গাইলে এসিল্যান্ডসহ ১৬ জন করোনায় আক্রান্ত

টাঙ্গাইলে নাগরপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তারিন মাসরুরসহ নতুন করে আরও ১৬ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ১৮১ জনে। আক্রান্তদের মধ্যে কালিহাতী উপজেলায় দুইজন, মধুপুরের দুইজন, সদর উপজেলায় একজন,

নাগরপুরের তিনজন, ঘাটাইল উপজেলার চারজন, বাসাইলের একজন আর ধনবাড়ীতে রয়েছেন তিনজন। গতকাল সোমবার সকালে টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. মো. ওয়াহীদুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গত বৃহস্পতিবার ২২৭ জনের জনের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়। গত রোববার মধ্যরাতে ফলাফল আসে। এতে নতুন করে ১৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

এখন পর্যন্ত জেলায় মোট আক্রান্তদের মধ্যে চারজন মারা গেছেন আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪৬ জন। কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন মোট ৯ হাজার ৯৮ জন। এখন পর্যন্ত এ জেলায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ৫ হাজার ২৫৪টি। এর মধ্যে নেগেটিভ এসেছে ৪৬১৯টি। গতকাল সোমবার এ জেলা থেকে ঢাকায় নমুনা পাঠানো হয়েছে ১৪৮টি। মোট ৪৫৪টি নমুনার ফলাফল এখনও পাওয়া যায়নি।

নাগরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. রোকনুজ্জামান খান বলেন, আজ (গতকাল সোমবার) এ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) তারিন মাসরুরসহ তিনজন করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে উপজেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৬। তবে এ উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয় ২৪ জনের। বাকি দুইজন ঢাকায় নমুনা দিয়ে আসা রোগী। এছাড়াও এখন পর্যন্ত এ উপজেলায় সুস্থ রোগীর সংখ্যা ৫ জন।

একদিনে করোনা উপসর্গে দু’জনের মৃত্যু: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর আর কালিহাতী উপজেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সোমবার ভূঞাপুর আর কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। জানা যায়, ভূঞপুর উপজেলার গোবিন্দাসী ইউনিয়নের বিলচাপড়া গ্রামের চান মাহমুদের ছেলে খাজা

নাজিম উদ্দিন তালুকদার (৬৫) ঢাকায় শ্যামলী পিসি কালচারে নিরাপত্তা প্রহরী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সেখানে সর্দি, কাশি ও জ¦রে ভুগছিলেন।

গত রোববার অসুস্থতা বোধ করলে রাতেই একটি প্রাইভেটকার ভাড়া করে তিনি বাড়ি আসেন। পরে ভোরে বাড়িতে মারা যান তিনি। এদিকে এ ঘটনায় স্থানীয়রা লাশ দাফনে বাধা দিলে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ইসলামি ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় বিলচাপড়া কবরস্থানে গতকাল সোমবার দুপুরে দাফন করা হয়।

তার জানাজায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসলাম হোসাইন, ভূঞাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাশিদুল ইসলাম, ইসলামি ফাউন্ডেশনের সুপারভাইজার আনিছুর রহমানসহ স্থানীয়রা উপস্থিত ছিলেন। সত্যতা নিশ্চিত করে ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মহীউদ্দিন আহম্মেদ বলেন, মৃত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

তবে ওই ব্যক্তি ইতোমধ্যে দুইবার স্ট্রোকসহ হার্টের রোগে ভুগছিলেন বলেও জানান তিনি। অপরদিকে গতকাল সোমবার সকালে জ¦র ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে কালিহাতী উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের নগরবাড়ী গ্রামে ওমর আলী (৪০) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তিনি স্থানীয় একটি স’মিলে শ্রমিকের কাজ করতেন।

সত্যতা নিশ্চিত করে কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাইদুর রহমান জানান, গত রোববার শ্বাসকষ্ট সমস্যা নিয়ে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন ওমর আলী (৪০)। গতকাল সোমবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানে মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

তার বাড়িতে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের একটি টিম পাঠানো হয়েছে। করোনার উপসর্গ থাকলে মৃত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হবে। তবে উপসর্গ না থাকলে স্বাভাবিক নিয়মেই তার দাফন হবে বলেও জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here