আকবর নগরে আধিপত্য ধরে রাখতে মড়িয়া ছামেদ-মোক্তার

downloadআরিফ হোসেন হারিছ:
সিরাজদিখানে আধিপত্য বিস্তার ধরে রাখতে মরিয়া হয়ে উঠেছে হাজী ছামাদ আলী ও তার ভাতিজা মোঃ মোক্তার হোসেন তারা উপজেলার আকবর নগর এলাকার বাসিন্দা। আকবর নগর এলাকা ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জ উপজেলা, নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা উপজেলা ও মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলার অন্তর্ভুক্ত।
হাজী ছামেদ আলী ফতুল্লা উপজেলা, মোক্তার হোসেন সিরাজদিখান উপজেলার বাসিন্দা তারা কিছু দিন আগে ও দুজন দুই গ্রুপে থেকে টেটা বল্লম যুদ্ধে লিপ্ত ছিলো তারই জেরে জীবন দিতে হয়েছে জয়নাল মন্ডল নামের এক ব্যবসায়ীর বর্তমানে এই দুইজন এক হয়ে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার চালাচ্ছে বলে এলাকার একাধিক লোকে জানিয়েছে।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় সিরাজদিখান থানাধীন আকবর নগর গ্রামের ধলেশরী  নদীর উত্তর তীরে অবস্থিত একতা ব্রিকফিল্ডটি মোঃ মোক্তার হোসেনের চাচা হাজী মমতাজউদ্দীন এর কাছ হতে জবরদস্তি দখল করে নেয় ভাতিজা মোঃ মোক্তার হোসেন।
পরে এলাকার প্রেক্ষাপট পরিবর্তনের পর হাজী মমতাজ উদ্দিন সালিশের মাধ্যমে মো: মোক্তার হোসেনের নিকট হইতে মাটি বিক্রয় বাবদ ৪৫ লক্ষ টাকা পাওনা হয়। সালিশগন ব্রিকফিল্ডের ৫ লক্ষ ইট ও বাকী নগদ টাকা দিবে বলে বিষয়টি সুরাহা করেন।
হাজী মমতাজউদ্দীন সালিশগনের সুরাহা অনুযায়ী ব্রিকফিল্ড হইতে ইট নিতে গেলে মো. মোক্তার হোসেন দলবল নিয়ে ইট বোঝাই গাড়ি আটক করেন। পরে পুলিশ খবর পেলে ইট বোঝাই গাড়ি সিরাজদিখান  থানায় নিয়ে যায়।
এলাকাবাসী আরো জানান মোঃ মোক্তার হোসেন ও হাজী ছামাদ আলী  ঐ এলাকার ইট ভাটা থেকে সাপ্তাহিক চাঁদা ও জবরদখলের জন্যই আধিপত্য বিস্তারে মরিয়া হয়ে উঠেছে।
এবিষয়ে সিরাজদিখান থানার (সেকেন্ড অফিসার) এসআই জুবায়ের আলম মৃধা জানান জেলা পুলিশ সুপার স্যার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ হয়েছে যার তদন্তভার আমার উপর তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নিবেন আমার উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here