গজারিয়ায় পরকীয়ার জেরে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন: আটক ৪

106131080_740891996674151_1960454690824964398_nতুষার আহাম্মেদ:

গজারিয়ায় ইমামপুর ইউনিয়ন ষোল আনি গ্রামে দুই সন্তানের জননী নাছরিনকে( ২৭) পরকীয়ার জের ধরে ঘাতক স্বামী হেদায়েত হোসনসহ তার স্বজনদের বিরুদ্ধে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে।

গজারিয়া থানায় নিহতের ভাই হোসেন মিয়া বাদী হয়ে হত্যা মামলা করেছে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে
ঘাতক স্বামী হেদায়েত হোসনের দুই বোন শাহিনা বেগম(৪৫), সাফিয়া (৪০), ভগ্নিপতি আলমগীর (৫০) ও এক ভাগিনা সাফায়াত থানা হেফাজতে আটক আছে।

২২ জুন রবিবার রাত ২ টায় ষোল আনি গ্রামে মৃত লতিফ মাষ্টারের ছেলে হেদায়েত হোসনের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের ভাই মামলার বাদী হোসেন মিয়া জানান, পারিবারিক কলহের কারনে আমার বোনকে তার স্বামী হেদায়েত হোসন হত্যা করেছে। হেদায়েত হোসন রাতে আমাদের মোবাইল করে জানান নাছরিন বিষ খেয়ে মারা গেছে। তাকে নিয়ে ভবেরচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আছি। কিছু সময় পর ঘাতক হেদায়েত হোসনকে আর মোবাইল করে পাওয়া যায় নাই। সকাল ৫ টায় হাসপাতালে এসে দেখি বোনের লাশ পড়ে আছে। লোকজন নাই।

নিহতের স্বামী হেদায়েত হোসনের মা মাফিয়া বেগম জানান, ছেলে হেদায়েত হোসন বাড়িতে ছিল না। গভীর রাতে ঘুম থেকে জেগে দেখি গ্রামের আহসান মিয়ার ছেলে জিসান আর পুত্র বধু এক সাথে বসে আছে। তখন আমি চিৎকার করে বলি আমার ঘরে চোর এসেছে চোর এসেছে । এ কারনে জিসান আমাকে মারধর করেছে।

বাড়ির মানুষ জেগে আমার ঘরে আসতে না আসতে জিসান পুত্র বধুকেও মারধর করে । সে সময়ে ছেলের স্ত্রী নাছরিন চিৎকার করে বলছে জিসান আমাকে মারপিট করেছে । লোকজন এসে দেখে নাছরিন বমি করছে। তাকে বাচাতে বাড়ির শ্যামল ও বড় ছেলের স্ত্রী মিলে হাসপাতালে নিয়ে যায়। এর পর কি ঘটেছে আমি বলতে পারবো না।

স্বামী হেদায়েত হোসন নিজে মোবাইল করার কথা স্বীকার করে বলেন রাতে আমি ঢাকায় ছিলাম। রাত ২ টায় ফোনে জানান হয় বাড়িতে জিসান এবং স্ত্রী নাছরিন এক সাথে বসে আছে । জিসানের সাথে পরিকিয়ার বিষয়ে জানাজানি হওয়ায় জিসান আমার স্ত্রীকে খুণ করেছে।

গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত ডাঃ মাহে আলম জানান, রাত ৩ টায় রোগীটি হাসপাতালে পৌঁছে । রোগী নিয়ে আসা লোকজন আমাকে জানান রাস্তায় রোগী প্রচুর বমি করছে এবং সে বিষ খেয়েছে। চিকিৎসা শুরুর আগেই রোগীর মৃত্যু হয়েছে। রোগীর দুই হাতে একাধিক কাটা দাগ আছে।

তদন্ত কর্মকর্তা এস আই জামাল উদ্দিন জানান, এক হাতে ৭ টা অপর হাতে৫ টা কাটা দাগ আছে। নিহতের মুখে বিষ পানের কোন গন্ধ নাই। তাকে হত্যা করেছে ।

গজারিয়া থানা ওসি মোঃ ইকবাল হোসেন জানান, এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here