টঙ্গিবাড়ীতে না যেনে বিবাহিত ছেলের সাথে ঘোরতে যাওয়াই কাল হলো শ্রাবনীর

20200716_182739-620x330টঙ্গিবাড়ীতে না যেনে বিবাহিত এক প্রতারকের সাথে প্রেম করে কু-প্রচোরনার শিকার হয়ে অাত্নহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন স্কুল ছাত্রী শ্রাবণী। বৃহস্পতিবার বিকালে তাকে সুবচনী কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

এ ঘটনায় শ্রাবণীর পিতা আউয়াল শেখ বাদী হয়ে বুধবার রাতে টঙ্গিবাড়ী থানায় প্রতারক প্রমিক শাহাদাত সেখের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

জানাগেছে, উপজেলার সুবচণী গ্রামের আব্দুল আউয়াল এর বাড়িতে ৫/৬ মাস আগে কাঠমিস্ত্রি শাহাদাত ঘর উত্তোলনের কাজ করেছিলো। সে সময় ২ সন্তানের জনক শাহাদাত (২৮) নিজেকে অবিবাহিত জানিয়ে আব্দুল আউয়াল এর মেয়ে শিলিমপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রণীর ছাত্রী শ্রাবনী (১৪) এর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে। পরে গত ২১শে ফেব্রুয়ারী প্রতারক শাহাদাত শ্রাবনীকে নিয়ে পাশ্ববর্তী লৌহজং উপজেলার শামুরবাড়ি গ্রামে ঘুরতে যায়।

এ সময় প্রতারক শাহাদাত শ্রাবনীর সাথে তার মুঠোফোনে বিভিন্ন অাপত্তিকর ছবি ধারণ করে। পরে ওই কাঠমিস্ত্রী শ্রাবনীর ওই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি প্রদান করে শ্রাবনীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়তে চায়। এ বিষয়টি শ্রাবনীর পরিবারেও জানাজানি হলে লোকলজ্জার ভয়ে শ্রবানী বুধবার সকালে নিজ ঘরের অাড়ার সাথে গলায় ফাসঁ দিয়ে আত্নহত্যা করে।

এ ব্যাপারে শ্রাবনীর মা নিপা বেগম জানান, আমার মেয়েকে শাহাদাত ফুসলিয়ে ঘুরতে নিয়ে ওর সাথে ছবি তুলে প্রতারনা করতে চাইলে আমি শাহাদাত এর বাবা জুলহাস সেখের কাছে বিচার দেই। সে কোন বিচার করে নাই। আমার মেয়ের ছবি প্রচার করতে চাওয়ায় ও অত্নহত্যা করছে। আমি এর বিচার চাই। প্রতারক শাহাদাত একই গ্রামের জুলহাস সেখের ছেলে।

টঙ্গিবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ হারুন-অর -রশিদ জানান, প্রেমের সম্পর্কের জের ধরে পারিবারক চাপের কারনে নিহত আত্নহত্যা করেছে। এ ব্যাপারে টঙ্গিবাড়ী থানায় একটি অপমৃত্যূ মামলা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here