শ্রীনগরে অবৈধ গরুর হাট উচ্ছেদ

kedarpur-hat-3-620x330আরিফ হোসেনঃ শ্রীনগরের ভাগ্যকূল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের অবৈধ গরুর হাট উচ্ছেদ করেছে উপজেলা প্রশাসন। মঙ্গলবার দুপুরে শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাম্মৎ রহিমা আক্তারের নির্দেশে

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কেয়া দেবনাথ র‌্যাব ও পুলিশ নিয়ে কেদারপুর হাটে উপস্থিত হন। এসময়  তিনি গরুর পাইকারদেরকে গরু নিয়ে হাট থেকে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেন। পরে হাটের স্থাপনা উচ্ছেদ করে দেন।

cattle of munshiganjএর আগে ভাগ্যকূল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মনোয়ার হোসেন শাহাদাৎ ইজারা না নিয়েই কেদারপুর অস্থায়ী গরুর হাট বসান। গত বছর এই হাটটির ইজারা মূল্য উঠেছিল প্রায় ৪৮ লাখ টাকা। এই বছর সরকারীভাবে হাটটির কাংখিত মূল্য নির্ধারণ করা হয় ৩০ লাখ ২০ হাজার টাকা।

কিন্তু স্থানীয় চেয়ারম্যান কাজী মনোয়ার হোসেন শাহাদাতের নেতৃত্বে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার জন্য গঠিত হয় সিন্ডিকেট। সিন্ডিকেটটি একাধিক সিডিউল কিনলেও যোগসাশজে সর্বোচ্চ প্রায় ১১ লাখ টাকায় ইজারা মূল্য হাঁকে। পরে সরকারী ভাবে হাটের ইজারা স্থগিত হয়ে যায়।

কিন্তু কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে শাহাদাৎ চেয়ারম্যান কেদারপুর বাঁশের সারি গেড়ে সামিয়ানা টাঙ্গিয়ে গরু বেঁচা কেনা শুরু করেছে। বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর মঙ্গলবার দুপুরে তা উচ্ছেদ করা হয়।

তবে পাবনা,বেড়া ও সিরাজগঞ্জ থেকে আসা একাধিক পাইকার জানান, তারা এই হাট থেকে গরু অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার সময় হাটের আয়োজকরা তাদের কাছ থেকে গরু প্রতি হাটের বাশ খুটি বাবদ ১শ থেকে ৫শ করে টাকা রেখে দেয়। তাদের অভিযোগের সত্যতা জানার চেষ্টা করলে হটে আয়োজকদের কাউকে পাওয়া যায়নি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here