সিরাজদিখানে ভুয়া মালিক সেজে মসজিদের কোটি টাকার জমি আত্মসাত

cattle of munshiganjআরিফ হোসেন হারিছ:
সিরাজদিখানের বাসাইল ইউনিয়নের গুয়াখোলা নগর জামে মসজিদের জমি নীজে ভুয়া মালিক সেজে ও ভাইকে মসজিদের ভুয়া মোতায়াল্লী বানিয়ে গোপনে মসজিদের এক কোটি টাকার জমি আত্মসাৎ করেছে অভিযোগ উঠেছে সিরাজদিখান উপজেলা বাসাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি আতিকুর রহমান ওরফে বাবু সরকারের বিরুদ্ধে ।
received_615170976061276বাদিকে মসজিদের ভুয়া মোতয়াল্লী সাকিলুর রহমান অপু সরকার ডানে জমির ভুয়া মালিক আওয়ামীলীগ নেতা আতিকুর রহমান বাবু সরকার জমিটি হচ্ছে বাসাইল ইউনিয়নের গুয়াখোলা নগর জামে মসজিদের সম্পত্তি।
ঘটনা প্রকাশের পর এলাকায় এ বিষয়ে মুসল্লিদের প্রতিবাদ সভা ক্ষোভ ও চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এলাকার মুসলিম সম্প্রদায় অবিলম্বে দোষীদের বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করেছে।
এ ব্যাপারে গুয়াখোলা জামে মসজিদ কমিটি ও এলাকার মুসল্লীগন জানায় যে, ১৯৬০ সালে জনৈক ব্যক্তি ওয়াকফ দলিল মুলে মসজিদ স্থাপনের জন্য ৮ শতাংশ ও ৯৩ শতাংশ নাল জমি দান করেন। সে মোতাবেক
এলাকার মুসল্লিগন শান্তিপূর্ণ ভাবে মসজিদে নামাজ আদায় করছে ও ৯৩ শতাংশ কৃষি জমির আয়-ব্যয় দিয়ে মসজিদের উন্নয়মূলক কাজ করে আসছে।
কিন্তু গত ২০১৬ সালে এই আওয়ামীলীগ নেতা আতিকুর রহমান বাবু সরকার নিজে জমির ভুয়া মালিক সেজে ও চাচাত ভাই সাকিলুর রহমান অপু সরকারকে মসজিদের ভুয়া মোতয়াল্লী বানিয়ে গোপনে জমির আর এস খতিয়ান পর্চা অবৈধ ভাবে সংশোধনের জন্য মুন্সীগঞ্জ আদালতে মামলা দায়ের করেন।  মামলার ব্যাপারে মসজিদ কমিটিকে অবহিত করেননি ও কোন নোটিশ প্রদান করা হয়নি।
গোপনে তারা কোর্টের একতরফা রায় এনে জমি দখলের পায়তারা করলে মসজিদ কমিটি ও এলাকার মুসল্লীগন জানতে পেরে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিবাদ সভা করে। পরে ঘটনাটি অন্যান্য এলাকার মুসলিম সম্প্রদায় জানতে পেরে
ক্ষোভ প্রকাশ করে ও অবিলম্বে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ ও দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করে। এমন কি অবিলম্বে মসজিদের জমি উদ্ধার না হলে এলাকার মুসল্লীগন বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দিবে বলে ঘোষনা দেন।
এই ব্যাপারে গুয়াখোলা নগর জামে মশজিদের সভাপতি সামসুজ্জামান পনির জানান, মসজিদের পূর্ব মুসল্লীদের রেখে যাওয়া ওয়াকফ দলিল মূলে মসজিদ উক্ত সম্পত্তি ভোগ দখল করে আসছে। যারা গোপনে মসজীদের জমি আত্মসাতের উদ্দেশ্যে কোর্টের রায় এনেছে তাহা সম্পূর্ন অবৈধ ও বেআইনী,
আমরা ঐ রায়েরে বিরুদ্ধে যুগ্ম জেলা জর্জ দ্বিতীয় আদালতে ২০১৮ইং সালে দেওয়ানি মোকাদ্দমা আপিল করেছি এবং মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে অবিলম্বে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রতারনা মামলার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।
এব্যাপারে আওয়ামীলীগ নেতা আতিকুর রহমান বাবুর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি এই বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here