গজারিয়ায় মহাসড়কে সিএনজি ও মিশুক স্ট্যান্ড নেই: যাত্রীদের দুর্ভোগ

118599639_1004768153285021_1160040990286059908_oঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়ক থেকে গজারিয়া প্রবেশের প্রধান মুখ হচ্ছে ভবেরচর বাস ষ্ট্যান্ড এলাকাটি। এখান থেকেই প্রথমেই যাওয়া যায় গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। আর এ পথ দিয়েই যেতে হয় গজারিয়া উপজেলা পরিষদে। সেখান যাওয়ার পথে রয়েছে ভায়া পথে রসুলপুর ও সোনালী মার্কেটে।

এই পথ ধরেই যেতে হয় জেলা শহরের মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলায়। তবে ভবেরচর থেকে গজারিয়া লঞ্চঘাট পর্যন্ত সড়ক পথে আসা গেলেও রসুলপুরের ফুলদি নদীতে ট্রলার পার হতে হয়। এছাড়া গজারিয়া লঞ্চঘাট থেকে মেঘনা নদী ট্রলারে পার হয়ে সড়ক পথে জেলা শহরে প্রবেশ করতে হয়।

ঐ পারে গজারিয়া উপজেলা পরিষদ থাকলেও ফুলদি নদীর এপারে রয়েছে গজারিয়া থানা পুলিশের অফিস। এ পথে অনেকগুলো লিংক রোড থাকলেও কোথায়ও স্ট্যান্ড নেই। এদিকে নানা কারণে এ পথে হাজার হাজার মানুষ চললেও কোন পরিসেবা পাচ্ছে না যাত্রীরা। ভবেরচর থেকে লিংক রোড দিয়ে বিকল্প পথে চাঁদপুরের মতলবে যাওয়া যাচ্ছে অনাসায়ে।

এছাড়া একাধিক বিকল্প পথে মহাসড়কে যাওয়া যাচ্ছে গজারিয়ার বিভিন্ন স্থান থেকে। ভৌগলিকভাবে গজারিয়া উপজেলাকে সাইকেলিংভাবে সড়ক পথ সাজানো হয়েছে ইতোমধ্যে। সেই পথ ধরে এ জনপদেও মানুষ বিভিন্নভাবে চলাচল করছে প্রতিদিন।

এসব পথে প্রতিদিন আসা যাওয়া করছে কয়েক হাজার সিএনজি, মিশুক ও পণ্যবাহি ছোট বড় ট্রাক এবং লরি। এ পথে যাত্রী উঠা নামা স্থান গুলোতে বিভিন্ন দোকানপাট গড়ে উঠলেও যাত্রীদের যাত্রী ছাউনি গড়ে উঠেনে এখনো। তাতে এ পথের যাত্রীদেও জনদুর্ভোগ বেড়ে চলেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here