সিরাজদিখানে অবৈধভাবে ফসলি জমি ভরাট

4নিজস্ব প্রতিবেদক: সিরাজদিখান উপজেলার জৈনসার ইউনিয়নের চম্পকদী ও কাঠালতলী গ্রামে একটি হাউজিং কোম্পানি কৃষকদের ফসলি জমি কিনে অবৈধভাবে ভরাট করে দখল করে নিচ্ছে। জানাগেছে এ বিষয়ে গত ২০ সেপ্টেম্বর গত রবিবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও ইউএনওর কাছে মৌখিক অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী।

অভিযোগে কাঠালতলী গ্রামের বিএনপি নেতা শমশের আলী ভুইয়া নিরীহ লোকদের জমি কম দামে কিনে ড্রেজার দিয়ে বালু ফেলছেন। তাঁদের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। জৈনসার ইউনিয়নের কাটালতলী ও চম্পকদী গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, কৃষকদের ফসলি জমিতে ড্রেজার দিয়ে বালু ভরাট করা হচ্ছে। এ সময় কৃষি জমি ও পাশের জমির বাড়ির মালিক মৃত মইজদ্দিন মোল্লার ছেলে আব্দুল আজিজ (৬০) বলেন বলেন,

‘আমার প্রায় দুই বিঘা জমি রয়েছে। এই জমিতে ফসল উৎপাদন করে জীবিকা নির্বাহ করে থাকি। কিন্তু বিএনপি নেতা শমশের অলী ভুইয়ার কোম্পানির লোকজন পাশের জমি কিনে বালু ভরাট করছে এখনতো আমার জমিতেও ফসল হবে না । কোম্পানীর লোকজন ফসলী জমি কিনে জমিতে বালু ভরাট করে দখল করে নিচ্ছে। চম্পকদী কবরস্থান এলাকার কৃষক আসলাম মিয়া বলেন, ‘আমাদের জমিতে ইরি, বোরো ধানসহ তিন ফসল জন্মে।

যেভাবে বেরা দিয়েম বালু দিয়ে ভরাট করছে এতে আমাদের না খেয়ে থাকতে হবে। কৃষক করিম মিয়া ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘আমাদের জমি পাশে বালু ভরাট করে ফেলা হচ্ছে। প্রতিবাদ করলে মিথ্যা মামলা ও পুলিশ দিয়ে গ্রেফারের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে।

এতে আমরা নিরাপত্তহীনতার মধ্যে রয়েছি। অনুসন্ধান চালিয়ে জানা যায়, জৈনসার ইউনিয়নের চম্পকদী,কাঠালতলী এলাকার বিএনপি নেতা শমশের আলী ভুইয়া সহ একটি চক্র এই অবৈধ বালু ভরাট করে ফসলি জমি নস্ট করছে। জৈনসার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম দুদু বলেন,

‘সাধারণ কৃষকদের ফসলি জমি কোনোভাবে ভরাট করতে দেওয়া হবে না। বি এনপি নেতা শমশের আলম ভুইয়ার সাথে মুঠোফোনে বার বার কথা বলার চেস্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here