মানিকপুর-মুক্তারপুরে রাস্তায় গ্যাস লিকেজ: দুর্ঘটনার আশংকা

1মোহাম্মদ সেলিম ও তোফাজ্জ্বল হোসেন শিহাব:

মুন্সীগঞ্জে একাধিক রাস্তায় গ্যাস লিকেজের খবর পাওয়া যাচ্ছে। রাস্তা দুটি হচ্ছে মানিকপুর ও মুক্তারপুরে। রাস্তা দুটিতে একটু বৃষ্টি হলেই এ লিকেজ স্পষ্ট ভাবে প্রকাশ পায় পথচারীদের মাঝে। বৃষ্টির কারণে রাস্তায় লিকেজ স্থানেই পানির বুদ বুদ দেখা দেয়ার মধ্যে দিয়ে প্রকাশ পায় রাস্তার কোন স্থানে গ্যাস লিকেজ হয়ে আছে।

তার প্রকাশ পায় তখন এভাবেই। ফুটন্ত ভাতের পানির মতো সেই পানি টক বক করতে থাকে রাস্তার মাঝে। এসব স্থানে যে কোন ভাবেই হোক রাস্তার মাটির নিচে গ্যাসের পাইপ লিকেজ হয়ে আছে বছরে পর বছর ধরে।

কোন ধরণের সংস্কার না হওয়ায় এ বিষয়টি এখানে বড় আকার ধারণ করছে বলে এখানকার মানুষ মনে করছে। আর সেখান থেকেই এ ফুটন্ত পানির বুদ বুদ দেখা যাচ্ছে বৃষ্টির সময়ে প্রতিদিন। দ্রুত এসব স্থানে সংস্কার করা না হলে যে কোন সময় এখানে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে অনেকেই মনে করছেন।

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের মুক্তারপুর এলাকায় পান্না সিনেমা হলের সামনের প্রধান সড়কেই এ ধরণের দৃশ্যে দেখা যাচ্ছে। রাস্তার উত্তর পাশে কিনার ঘেষে এ দৃশ্যে দেখা যায়। এ রাস্তায় কোথাও না কোথাও রাস্তায় কাটা কাটির কারণে এখানে গ্যাসের পাইপ কেটে যেতে পারে বলে অনেকেই ধারণা করছে।

এছাড়া এ পথে ভারি ভারি যানবাহন চলাচলে করে প্রতিদিন। এখানে বৃষ্টির পানিতে রাস্তা ডুবে থাকা থেকে সারাক্ষণ। আর সেই সময়টাইতে একাধিক স্থানে বুদ বুদ পরিলক্ষিত হয়। তবে বৃষ্টির পানি রাস্তা থেকে শুকিয়ে গেলে এ দৃশ্যে আর দেখা যায় না বলে এর আশ পাশের দোকানদাররা জানিয়েছে।

কিন্তু এখানে বড় ধরণের লিকেজ ধীরে ধীরে বড় হলে বড় ধরণের দুর্ঘটনার আশংকা করছে এ পথের পথচারীরা। এ রাস্তাটি নানা কারণে সবচেয়ে গুরুত্ব পূর্ণ। কারণ হচ্ছে মুক্তারপুর সেতু থেকে যানবাহন নামার পরে মুন্সীগঞ্জ জেলা শহরে যেতে হলে বেশিরভাগ যানবাহন এ পথটিই ব্যবহার করে থাকেন শহরে আসার জন্য। সে কারণে এ পথের এ বিপদ জনক রাস্তাটি পুন:খননে বিষয়টি খতিয়ে দেখা প্রয়োজন বলে অনেকেই মনে করে।

অন্যদিকে মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মানিকপুর সড়কের রেনেসা ক্লিনিকের সামনের এ রাস্তাটিও অনুরূপ অবস্থায় রয়েছে। এখানে বুদ বুদের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। তাই বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজর দেয়া প্রয়োজন সময়ের দাবি হিসেবে অভিযোগ উঠেছে।

মুন্সীগঞ্জের মুক্তারপুরস্থ তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিশন এর ম্যানেজার মো: মেজবাহ উদ্দিন জানান, উল্লেখিত বিষয়টি তাদের নজরে রয়েছে। এ বিষয়ে খুব শীঘ্রই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জোর দাবি করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here