মোল্লাপাড়া-উত্তর ইসলামপুরের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনায় কয়েক দফায় মারামারি

12মোহাম্মদ সেলিম: মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের মোল্লাপাড়া গ্রাম ও উত্তর ইসলামপুর গ্রামের লোকজনদের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। মারামারি ঘটনায় আহত হয়ে বেশিরভাগ মোল্লাপাড়া গ্রামের লোকজন মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে বর্তমানে ভর্তি আছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে বর্তমানে মুন্সীগঞ্জ থানায় মোল্লাপাড়া লোকজন মামলার দায়ের জন্য অপেক্ষমান রয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে। এ বিষয়ে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সুলতান বেপারী সহ চরকিশোরগঞ্জ-মোল্লাপাড়া পঞ্চায়েত কমিটির নেতৃবৃন্দ।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উত্তর ইসলামপুরের রাতুল প্রধান, হেলাল, জোনাইডসহ তারা চর চরকিশোরগঞ্জ-মোল্লাপাড়ায় আসে। এ সময়ে তাদের সাথে সাইমন ও সিয়ামের তর্ক বিতর্ক হয় বলে শোনা যাচ্ছে। এক পর্যায় এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মাঝে শুরু হয় মারামারি।

তাতে মোল্লাপাড়ার লোকজন সবচেয়ে বেশি আঘাত প্রাপ্ত হয় বলে অনেকেই অভিমত প্রকাশ করেছেন। সেই সময়ে তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি মীমাংসা করে সমঝোতার মাধ্যমে বিষয়টি শেষ করে আনেন এলাকার বর্তমান কাউন্সিল সুলতান বেপারীসহ পঞ্চায়েত কমিটির সদস্যরা। এই মিমাংসার পরেও রবিবার সকালে উত্তর ইসলামপুরের লোকজন পুনরায় আবার মোল্লাপাড়া গ্রামের ওপর হামলা চালায়।

এই হামলায় নারী ও শিশু গুরুতর আহত হয়। আহতরা বর্তমানে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানা গেছে। এ ঘটনার পর থেকে মোল্লাপাড়া গ্রামের লোকজন উত্তর ইসলামপুর গ্রাম দিয়ে চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। তারা এখান হাটলক্ষিগঞ্জ ও দক্ষিণ ইসলামপুর দিয়ে চলাচল করছে বলে শোনা যাচ্ছে। যাতে তারা আবার হামলার শিকার না হন।

আবারো এ বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য সুলতান বেপারীসহ পঞ্চায়েত কমিটির সদস্যরা উত্তর ইসলামপুরের ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আসাদ মাদবরের বাড়িতে যান। সেখানেও উপস্থিত সকলের সামনে পৌর কাউন্সিলসহ পঞ্চায়েত কমিটির সদস্যরা হামলার শিকার হন।

এ সময় হামলাকারীদেও হাতে থাকা ছুড়ি, রড, কাঠের ডাসা, বিভিন্ন আক্রমন করার মতো যন্ত্রপাতি লক্ষ করা যায়। উক্ত ঘটনার সময়ে মোঃ আরিফ মিজিকে লক্ষ করে হামলাকারিরা ছুড়ি ছুড়ে মারেন বলে অভিযোগ উঠেছে তাদের বিরুদ্ধে। তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করলে উপস্থিত থাকা কাউন্সিল সুলতান বেপারীসহ চর কিশোরগঞ্জ মোল্লাপাড়ার পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি মিজানুর রহমান মির্জা,

গাজী মাদবর, আলমগীর হোসাইন, সুমন মিয়া, মালেক মিয়া, জুলহাস মাদবর, কামাল সরকার, চান বাদশা, রহম আলী, মনির মোল্লা, খোরশেদ মিয়া, আল ইসলাম, মোশাররফ মিয়া, আওলাদ মাদবর, অলি মিয়াসহ আরো অনেকেই হামলার শিকার হন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here