বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের ওপর আঘাত জনগণ মেনে নেবে না : প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা

fazailatun-nessa-indiraমহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ওপর আঘাত জনগণ মেনে নেবে না। যে ষড়যন্ত্রকারী ও কুচক্রীরা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙেছে তাদের কালো হাত গুঁড়িয়ে দেওয়া হবে। ষড়যন্ত্রকারীদের সমুচিত জবাব দেওয়া হবে।

আজ সোমবার মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার ভবেরচর বাসস্ট্যান্ডে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ১৯৭১ সালের ৭ ডিসেম্বর সম্মুখ যুদ্ধের শহিদের স্মৃতির উদ্দেশে নির্মিত ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে’ শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ শেষে এসব কথা বলেন ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের ওপর আঘাত হেনেছে তাদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি দিতে হবে। প্রয়োজনে আইন সংশোধন করে হলেও শাস্তি দিতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা ৭ ডিসেম্বর সম্মুখ যুদ্ধের ঘটনা ও স্মৃতি উল্লেখ করে বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় ভবেরচর ও দাউদকান্দি এলাকার মুক্তিযোদ্ধারা গজারিয়ার পৈক্ষারপাড় গ্রামে আমাদের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিল। তখন থেকেই আমার (প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা) ছোট ভাই মতিউর মুক্তিযোদ্ধাদের সান্নিধ্যে এসে মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন। আগেই খবর ছিল, পাক আর্মিরা ভবেরচর ও আশপাশের গ্রামে হামলা চালাবে।

তখন কিশোর মুক্তিযোদ্ধা মতিউরসহ আরো অনেকে খাবার ও ফলের ঝুঁড়িতে বোমা নিয়ে ভবেরচর ঈদগাহ ব্রিজ উড়িয়ে দিতে আসে। এরপর পাক আর্মির সঙ্গে সম্মুখ যুদ্ধে এই মহাসড়কে ১২ জন কিশোর শহিদ হয়। তাদের স্মৃতির উদ্দেশে ২০১৯ সালে এই স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করা হয়েছে। যা নতুন প্রজন্মের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দেবে ও শহিদদের বীরত্বগাঁথা তুলে ধরবে।

মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক মনিরুজ্জামান তালুকদারে সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন, যুদ্ধকালীন থানা কমান্ডার মো. রফিকুল ইসলাম বীরপ্রতীক, গজারিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তালেব ভূইয়া ও জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুন নাহার শিল্পী।

বাসস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here