রিকাবিবাজারে গুরুত্বপূর্ণ ব্রীজ এখন মরণ ফাঁদ

4মোহাম্মদ সেলিম ও আবু সাঈদ (সৌরভ):

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মিরকাদিম পৌরসভার রিকাবিবাজারে যাতায়াতের জন্য একমাত্র এই গুরুত্বপূর্ণ ব্রীজটি এখন মরণ ফাঁদে তৈরি হয়েছে। এলাকাবাসীরা নিজ উদ্যোগে রবিবার সকালে এই ব্রীজে সকল ধরণের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। মিরকাদিমের ব্যবসায়িক প্রাণকেন্দ্র রিকাবী বাজার চৌরাস্তা থেকে উওরের টেলিফোন ভবনের সামনে পুরাতন কাটপট্টির জোড়া ব্রীজের একমাত্র ব্রীজটি ভয়াবহ দূর্ঘটনার ঝুঁকিতে ছিল অনেকদিন ধরে। ইতোমধ্যে কয়েক দফায় ব্রীজটির কয়েক যায়গায় মাঝখানে ভেঙ্গে গিয়ে রড বের হয়ে যায়।

পরবর্তিতে সেখানে তালি দিয়ে মেরামত করা হয়। সেই থেকে এখানে আবারো যানবাহন চলাচল শুরু হয়। কিন্তু এরমধ্যে আবারো অন্যখান দিয়ে ব্রীজটির মাঝখানে ভাঙ্গান দেখা দেয়। তাতে কয়েকদিন যাবৎ মানুষ ও যানবাহন ঝুঁকি নিয়েই এই ব্রীজে চলাচল করছে। মানুষ ও কমলাঘাট ও কাঠপট্রির মালবাহী যানবাহনের অব্যাহত চলাচলের কারণে ব্রীজটিতে ঝুঁকি বেড়ে গেছে দ্বিগুন। যে কোন সময় এখানে ঘটতে পারে ভয়াবহ দূর্ঘটনা ও মারাত্মক হতাহতের ঘটনা।

মুন্সীগঞ্জ সদরের মিরকাদিম পৌরসভার ব্যবসায়িক প্রাণকেন্দ্র মিরকাদিম পৌরভবন, নতুন ও পুরাতন লঞ্চগাট এবং মিরকাদিম পৌরসভার ঐতিহ্যবাহী বাণিজ্যিক এলাকা খ্যাত কমলাঘাট বন্দর, মাছের আড়ৎ, সরকারি টেলিফোন অফিস, পোস্ট অফিস, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্র, মুন্সীগঞ্জের প্রধান বিদুৎ কেন্দ্র, শহিদ জিয়াউর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়, রিকাবী বাজার দারুল উলুম মাদ্রাসা এবং পুরাতন কাটপট্রি, পুরাতন লঞ্চঘাট এবং গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়িক এলাকার যোগাযোগ যে কোন সময় এই ব্রীজের কারণে বিচ্ছিন্ন হয়ে যেতে পারে।

মিরকাদিম পৌরসভা একটি জনবহুল ও বাণিজ্যিক এলাকা। আশপাশের কযেকটি ইউনিয়ন ও মুন্সীগঞ্জের হাজার হাজার লোক প্রতিদিন এই রাস্তায় ব্যবসায়িক ও ব্যক্তিকেন্দ্রিক প্রয়োজনে যাতায়াত করে।

রবিবার দুপুরে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মিরকাদিমের প্রধান এই সড়কের জোড়া ব্রীজের একটি অনেক আগে থেকেই অচল। দুইটির মধ্যে একমাত্র সচল ব্রীজটি অচল হওয়ার সম্ভাবনার কারণে পৌরবাসী ও আশপাশের কযেকটি ইউনিয়ন ও মুন্সীগঞ্জের হাজার হাজার লোক প্রতিদিন এই ব্রীজের উপর দিয়ে চলাচলের কারণে দূর্ঘটনা প্রাণনাশের শঙ্কা রয়েছে। দূর্ঘটনার সম্ভাবনায় ব্রীজটি বর্তমানে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

মিরকাদদিম পৌরসভার বাসিন্দা কামরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর বলেন, প্রধান এই সড়কটির গুরুত্বপূর্ণ ব্রীজটি দ্রুত মেরামতের ব্যবস্থা কিংবা নতুন আরেকটি ব্রীজ তৈরি করা না হলে মানুষের দূর্ভোগ যেমন বাড়বে পাশাপাশি ক্ষতির সম্মুখীন হবে কয়েকশ ব্যবসায়ী এবং মিরকাদীম পৌরবাসী ও জনসাধারণ ।

পৌরবাসী, ব্যবসায়ী ও পথচারিদের দাবি কৃর্তপক্ষ অতি দ্রুত বিকল্প ব্যবস্থা কিংবা দ্রুত ব্রীজের মেরামত করার ব্যবস্থা গ্রহণ করে দূর্ভোগ, দূর্ঘটনা এবং ব্যবসায়ীদের আর্থিক ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here