মুন্সীগঞ্জ পৌর নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী শহিদুল ইসালাম শহিদ

imagesমোহাম্মদ সেলিম ও তোফাজ্জ্বল হোসেন:

মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী হচ্ছেন মুন্সীগঞ্জ শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসালাম শহিদ কমিশনার। বিএনপির প্রার্থী হিসেবে এমন গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। তিনি এবারের নির্বাচনে এ ধরণের পদে নতুন মুখ। তবে তিনি একাধিকবার তার নিজ এলাকার দক্ষিণ ইসলামপুরের ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করার অভিজ্ঞতা রয়েছে। বর্তমানেও তিনি সেখানে কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার দক্ষিণ ইসলামপুর এলাকাটি মুন্সীগঞ্জ শহরের বিএনপির অধ্যাশিত এলাকা হিসেবে সবচেয়ে পরিচিত। তাই বিএনপি এবারের নির্বাচন মোকাবেলায় একাধিক প্রার্থীও মধ্যে এই এলাকা থেকেই মেয়র প্রার্থী হিসেবে শহিদুল ইসলাম শহিদকে বেছে নিয়েছেন বলে অনেকেই মনে করছেন। এলাকাটিতে ইতোমধ্যে একাধিকবার মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন প্রয়াত খালেক মাস্টার। গত পৌর নির্বাচনে এখানে বিএনপির প্রার্থী ছিলেন শহর বিএনপির সভাপতি একেএম ইরাদত মানু।

131757997_417460609625067_4825842847279613614_nগত পৌর নির্বাচনে ৮নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর হিসেবে এখানে শহিদুল ইসলাম যে পরিমাণ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়ে ছিলেন, সেই পরিমাণ ভোট মানু পায়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। সেই নির্বাচনে তিনি তার এলাকায় নৌকার মেয়র প্রার্থীর সাথে সমঝোতায় ভোট ভাগাভাগিতে জয় লাভ করেছেন বলে একাধিক অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। সেই আলোকে ভোট টানার জন্য তিনি বিএনপির প্রার্থী হিসেবে মোটেও এখানে এবারের মতো শক্তিশালি প্রার্থী নয় বলে শোনা যাচ্ছে। সেই হিসেবে এখানে শেষ মূহুর্তে এখানে বিএনপির প্রার্থী পরিবর্তন হবে কিনা তা নিয়ে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।

অসুস্থ্যতার জন্য ইরাদত মানু এবারের নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে। তবে শেষ মূহুর্তে তিনিও বিএনপির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনের মাঠে ফিরে আসতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। একাধিক সূত্রে মতে জানা গেছে, গত বুধবার ঢাকার পল্টনের বিএনপির কেন্দ্রিয় কমিটির বৈঠকে মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র প্রার্থী হিসেবে হিসেবে শহিদুল ইসলাম এর নাম চূড়ান্ত করেছে বলে শোনা যাচ্ছে। আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা এখন শুধু মাত্র বাকি।

সেখানে বিএনপির মনোনয়নের জন্য চারজন ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গেছে। তারা হচ্ছেন মুন্সীগঞ্জ শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম শহিদ। জাতীয়তাবাদী মুন্সীগঞ্জ জেলা আইনজীবী ফোরামের সভাপতি এড. তোতা মিয়া। জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের সভাপতি এড. আজিমউদ্দিন স্বপন। মুন্সীগঞ্জ শহর বিএনপির সাবেক সভাপতি এড. মজিবুর রহমান। ইতোপূর্বে এড. মজিবুর রহমান বিএনপি ছেড়ে এরশাদের জাতীয় পার্টিতে চলেন যান।

এরপর তিনি এরশাদের জাতীয় পার্টি ছেড়ে কাজি জাফরের জাপায় চলে যান। এরপর তিনি আবার বিএনপিতে ফিরে আসেন। তবে এখন তার কোন পদ বা পদবি বিএনপিতে নেই। তারা সকলেই বিএনপি থেকে মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র প্রার্থী হিসেবে সেখানে মনোনয়ন প্রত্যাশি ছিলেন। তাদের সবাইকে টেক্কা দিয়ে শহিদুল ইসলাম শহিদ তার পক্ষে বিএনপির মনোনয়ন আনতে সক্ষম হন। মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে শহিদুল ইসলাম শহিদ নির্বাচন অফিস থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন বলে জানা গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here