লৌহজং-তেউটিয়া ইউনিয়ন: পদ্মার ভাঙ্গনে ৬টি ওয়ার্ড বিলীন সীমানা নির্ধারন নিয়ে জটিলতা

lohujang-up-3 (1)আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে পদ্মার ভাঙ্গনের শিকার উপজেলার সদর ইউনিয়ন লৌহজং- তেউটিয়া ইউনিয়নে সীমানা নির্ধারন নিয়ে জটিলতা দেখা দিয়েছে। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে পরেছে লৌহজং-তেউটিয়া ইউনিয়নের জনগণ।

পদ্মার কড়াল গ্রাসে লৌহজং-তেউটিয়ার ৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৩টি ওয়ার্ড সম্পুর্ন ও ৩ টি ওয়ার্ডের সিংহভাগ গ্রাম বিলীন হয়ে যাওয়ায় আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে ভোটাররা শংকিত। ৩ টি ওয়ার্ড সম্পূর্ন ও ৩ টি ওয়ার্ডের সিংহভাগ নদী গর্ভে বিলীন হওয়ায় সীমানা নির্ধারন ও ভোটাররা অন্যএ চলে যাওয়া নিয়ে জটিলতার সৃষ্ঠি হয়েছে।

১৯৯৩ সালে পদ্মার ভাঙ্গনে লৌহজং ইউনিয়ন ও তেউটিয়া ইউনিয়নের সিংহভাগ পদ্মায় বিলীন হয়ে যাওয়ায় দীর্ঘ দিন যাবত কোন রকম নির্বাচন হয়নি এই ভাঙ্গন কবলীত ইউনিয়নটিতে।

২০০১ সালের পর ভোটের মাধ্যমে ভাঙ্গন কবলীত দুটি ইউনিয়নের অংশ বিশেষ নিয়ে গড়ে উঠে লৌহজ-তেউটিয়া ইউনিয়ন। নতুন করে ২০২০ সালের পদ্মা ভাঙ্গনের শিকার এই ইউনিয়নটির ৩টি ওয়ার্ড সম্পূর্ন ও ৩ টি ওয়ার্ডের সিংহভাগ গ্রাম ভেঙ্গে যাওয়ায় ভোটাররা বিভিন্ন যায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পরে এবং সীমানা নির্ধারন নিয়ে সৃষ্ঠি হয় জটিলতার।

এই ইউনিয়নটি ভাঙ্গনের কবলে পরার আগে ভোটার সংখ্যা ছিলো ৮ হাজার, গত বছর ভাঙ্গনে ৩ টি ওয়ার্ড বিলুপ্ত ও ৩টি ওয়ার্ড সিংহভাগ বিলীন হওয়ায় বর্তমানে ভোটার সংখ্যা দাড়িয়েছে ৬ হাজারে। ইউনিয়নটির ৯ নং ওয়ার্ডের সাইনহাটি ও ব্রাক্ষনগাঁও গ্রাম দুটি পদ্মা গর্ভে সম্পূর্ন বিলীন হয়ে যায়। ৮ নং ওয়ার্ডের কোরহাটি ও ঝাউটিয়া গ্রাম সম্পূর্ন বিলীন, ৬ নং ওয়ার্ডের রাউৎগাঁও ও ভোজঁগাও গ্রাম দুটি সম্পূর্ন বিলীন।

৭ নং ওয়ার্ডের পাইকারা গ্রামটি সিংহভাগ বিলীন, ৩ নং ওয়ার্ডের দিঘলী গ্রাম ও পদ্মা রির্সোট সিংহভাগ বিলীন। এ ছারা ১ নং ওয়ার্ডের পাইকারা, দোয়াল্লী ও সংগ্রামবিল গ্রাম সিংহভাগ বিলীন হয়ে গেছে পদ্মার ভাঙ্গনে। পদ্মা ভাঙ্গনের কবলে পরে ভিটেমাটি হারিয়ে অন্যএ চলে গেছে এমন ভোটারের সংখ্যা প্রায় দুই থেকে আড়াই হাজার হবে বলে জানান, সাবেক মেম্বার মো. কালাম মোল্লা।

এই বিষয়ে লৌহজং উপজেলার নির্বাচন অফিসার মো. রিয়াজুল ইসলাম জানান, আমাকে লিখিত ভাবে পদ্মা ভাঙ্গনের শিকার লৌহজং- তেউটিয়া ইউনিয়নের ওয়ার্ড গুলো বিলুপ্তির বিষয়টি অবহিত করা হলে বিষয়টি আমি নির্বাচন কমিশনকে অবহিত করবো। সীমানা নির্ধারনের বিষয়টি তারা সমাধান করবেন।

গ্রামনগর বার্তা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here