সিরাজদিখানে ভ্যাকসিন গ্রহীতার সংখ্যা ৪৮৯

184080_image_url_Sirajdikhan pic vaccine 10-02-2021সিরাজদিখানে চার দিনে ভ্যাকসিন গ্রহীতার সংখ্যা ৪৮৯ জন। বুধবার ৪র্থ দিনে প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি কাজী নজরুল ইসলাম বাবুলসহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নিয়েছেন ২৫৯ জন এর মধ্যে পুরুষ ১৫১ ও নারী ১০৮ জন রয়েছে।

৪র্থ দিনে বিগত ৩দিনের তুলনায় ভ্যাকসিন গ্রহীতার সংখ্যা ছিল তুলনা মুলক অনেক বেশি। প্রথম দিন দিয়েছেন ৪০ জন, এর মধ্যে পুরুষ ২৬ জন ও মহিলা ১৪ জন, ২য় দিনে ৪০ জন তার মধ্যে পুরুষ ৩১ জন ও মহিলা ৯ জন এবং ৩য় দিনে ১৫০ জনের মধ্যে পুরুষ ১০৫ জন ও মহিলা ৪৫ দিয়েছেন। প্রথম ৩ দিনে ভ্যকসিন গ্রহণ করেছেন ৪০ ঊর্ধ্ব বয়সী বিভিন্ন ইউপি চেয়াম্যান, চিকিৎসক, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যসহ বিভিন্ন দাপ্তরিক কর্মকর্তারা।

৪০ বছরের উপরের যে কেউ জাতীয় পরিচয়পত্র ও মোবাইল নিয়ে উপস্থিত হয়ে বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স অথবা ইউনিয়ন তথ্য কেন্দ্র থেকে। এরপর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গিয়ে ভ্যাকসিন গ্রহন করতে পারবেন। বাড়িতে বসেও মোবাইল ফোনের মাধ্যমে www.surokkha.gov.bd এই লিংক ব্যবহার করে রেজিস্টেশন করতে পারবেন।

প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি কাজী নজরুল ইসলাম বাবুল জানান, আমি সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে টিকা নিয়েছি। দুপুর গড়িয়েছে এখনো কোন সমস্যা হয় নাই, আমার শরীর আরো ভালো অনুভব হচ্ছে। আমি মনে করি নিয়ম অনুযায়ী সকলেই টিকা নেওয়া উচিৎ। ভ্রান্ত ধারণা থেকে আমাদের বের হতে হবে। দেশ ও জাতির সুরক্ষায় আমাদের সকলের টিকা নেওয়া প্রয়োজন।

সিরাজদিখান থানার এসআই ইমরান হোসেন বলেন, আমি দুপুরে টিকা নিয়েছি, ভালো আছি, স্বাভাবিক কাজকর্ম করছি। ভয় পাওয়ার কিছু নাই এর কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নাই। আমি মনে করি গুজবে কান না দিয়ে, ৪০ বছরের উর্ধে যারা আছেন সরকারের দেওয়া এই ভ্যাকসিন নিন। এতে উপকার ছাড়া অপকার নাই।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আঞ্জুমান আরা জানান, ৪র্থ দিনে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন ২৫৯ জন। মোট চার দিনে ৪৮৯ জনকে এ পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে। কর্মসূচির আওতায় প্রথম পর্যায়ে সিরাজদিখানে ৯ হাজার টি ভ্যাকসিন এসেছে, এগুলো ডাবল ডোজ করে। এই ভ্যাকসিন সাড়ে ৪ হাজার জনকে দেওয়া যাবে।

পর্যায়ক্রমে আরো ভ্যাকসিন আসার অপেক্ষায় রয়েছে। একমাস পরে ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হবে। প্রথম সারির করোনা যোদ্ধাদের ক্ষেত্রে ১৮ বছরের উর্ধে হলেই টিকা দিতে পারবে। তবে এ ক্ষেত্রে টিকা কেন্দ্রে গিয়ে ম্যানুয়েলের মাধ্যমে রেজিস্টেশন করে নিতে হবে। বর্তমানে এ্যাপস এ ৪০ বছরের নিচে কাউন্ট করছে না, তবে এটাও ঠিক হয়ে যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here