মুন্সীগঞ্জে চাদাঁদাবি মামলায় ৭ জন আটক হলেও, পুলিশ এখনও উদ্ধার করতে পারেনি অস্ত্র

148666637_871718083619140_2622798617363552747_nমুন্সীগঞ্জ সদরে চাদাঁদাবি করে হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ৭ জন কারাগারে গেলেও পুলিশ এখনও উদ্ধার করতে পারেনি হামলায় ব্যবহৃত অস্ত্র। আর গ্রেফতার করা হয়নি এজাহারের বাকী ৫ আসামীকে।

এদের মধ্যে মামলার এজাহারের ১ নং আসামী জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক চরসন্তোষপুর এলাকার আব্দুল রহিম ভূইঁয়ার ছেলে মো. রুবেল ভূইঁয়া প্রকাশ্যে এলাকায় ঘোরাফেরা করলেও গ্রেফতার করেনি পুলিশ। ঘটনার দিন ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধার না হওয়ায় দেখা দিয়েছে শ্রমিকদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। অনেকে ভয়ে দিন কাটাচ্ছেন।

এর আগে গত ১৪ ফেব্রæয়ারী (রোববার) মুন্সীগঞ্জ চীফ জুডিশিয়াল আদালতে হাজির হয়ে মামলার এজাহারের ৬ জন আসামী জামিন আবেদন করলে তাদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুক্তা মন্ডল। মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার (৯ ফেব্রæয়ারী) চাদাঁ না দেওয়ায় সার শ্রমিক

ঠিকাদার নাসির মোল্লা (৪৩) কে মারধর ও হুমকি দেওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় ফাকাঁ গুলি ও ককটেল নিক্ষেপের মতো ঘটনায় বুধবার (১০ ফেব্রæয়ারি) মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় ১২ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন ভূক্তভোগী নাসির মোল্লা (৪৩)।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার চরমুক্তারপুর দেওয়ান কোল্ড স্টোরেজের সামনে ঠিকাদার নাসির মোল্লার কাছ থেকে ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা করে তার উপর হামলা করে ১০-১৫ জনের একটি দল। চাদাঁ না দেওয়ায় আকস্মিক মোটর সাইকেলে করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এবং তাকে মারধর করে ফাঁকা গুলি-ককটেল নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here