টঙ্গীবাড়ীতে স্বর্ণ ব্যবসায়ী উত্তমের আত্নহত্যা

logo png-full-sizeমো: তুষার আহাম্মেদ :

টঙ্গীবাড়ী উপজেলার হাসাইল বাজারের স্বর্ণ ব্যবসায়ী উত্তম শীল (৪০) একটি চিরকুট লিখে আত্নহত্যা করেছে বলে জানা গেছে।

গতকাল বুধবার বিকালে তার লাশ স্থানীয় একটি শশ্মানে ময়না তদন্ত শেষে পুড়ানো হয়েছে। এর আগে মঙ্গলবার হাসাইল বাজারে তার নিজ দোকানের আড়ার সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করে সে। নিহত উত্তম হাসাইল গ্রামের রবি শীলের ছেলে।

হাসাইল বাজারের পার্শ্ববর্তী দোকানদারদের কাছ থেকে জানা যায়, মৃত্যুর দিন মঙ্গলবার উত্তমের দেখা মিল ছিলো না। পরে সন্ধ্যায় তার দোকানে আলো জ্বলতে দেখতে পেয়ে কিছু মানুষ দোকানের সামনে গিয়ে সাটারের নিচ দিয়ে উকি মেরে উত্তমের লাশ ঝুলুন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। পরে সাথে সাথে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে তারা পুলিশের কাছে খবর দিলে মঙ্গলবার রাতে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

সে সময় নিহত উত্তমের লুঙ্গির কোচরে সাদা কাগজে একটি চিরকুট দেখতে পায় এলাকাবাসী। পুলিশ স্থানীয়দের সামনে চিরকুটটি খুললে স্থানীয়রা দেখতে পায় চিরকুটের মধ্যে আমার মৃত্যুর জন্য রাসেল মেলকার দায়ী লিখা আছে। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যর সৃষ্টি হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি জানান, কিছুদিন পূর্বেও রাসেল মেলকারের সাথে উত্তম শীলের কথা কাটাকাটি হয়ে ছিলো।

এদিকে ঘটনার পর থেকে রাসেল মেলকারকে এলাকায় পাওয়া যাচ্ছে না। রাসেল মেলকার একই গ্রামের মনু মেলকারের ছেলে।

এ ব্যাপারে রাসেল মেলকার জানান, আমার সাথে ব্যবসায়িক লেনদেন নিয়ে ২ দিন আগে উত্তমের কথা কাটাকাটি হয়। পরে কি কারণে আত্নহত্যা করেছে আমি জানি না। নিহতের কাছে যে চিরকুট পাওয়া গেছে তার সাথে উত্তমের আগের হাতের লিখার কোন মিল নাই। আমাকে ফাঁসাতে অন্য কেউ চিরকুট লিখে লাশের লুঙ্গির কোচরে রেখে দিয়েছে।

এ ব্যাপারে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা টঙ্গীবাড়ী থানা এস.আই জাহিদ বলেন মামলা তদন্তের স্বার্থে আমি কিছু বলতে যাচ্ছি না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here