সিরাজদিখানে সুলতান আমলের পাথরঘাটা শাহী মসজিদ

IMG_9299

মোহাম্মদ সেলিম:

মধ্যে যুগের সুলতান আমলে সিরাজদিখান উপজেলার বাসাইল ইউনিয়নে নির্মিত হয় পাথরঘাটা শাহী মসজিদ। এ মসজিদটি নির্মিত শিলালিপিতে ১৫০৯ খ্রিষ্টাব্দ লেখা রয়েছে। শিলালিপি অনুযায়ি এটি মধ্যে যুগের সুলতানি আমলের পাথরঘাটা শাহী মসজিদ।

মধ্যে যুগে সুলতানি আমলে বাংলার স্বাধীন সুলতান ছিলেন আলাউদ্দিন হোসেন শাহ। তিনি ১৪৯৩ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ১৫১৯ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত বাংলায় শাসন করেন।

তিনি হোসেন শাহি রাজবংশের পত্তন করেন। হাবশি সুলতান শামসউদ্দিন মোজাফফর শাহ নিহত হওয়ার পর তিনি বাংলার সুলতান হন। ইতোপূর্বে তিনি মোজাফফর শাহের উজির ছিলেন। তার শাসনামলকে বাংলার স্বর্ণযুগ বলে অভিহিত করা হয়। ১৫১৯ খ্রিষ্টাব্দে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। এরপর তার পুত্র নাসিরউদ্দিন নুসরাত শাহ ক্ষমতা লাভ করেন।

পাথরঘাটা শাহী মসজিদটি তিন গম্বুজ বিশিষ্ঠ। গম্বুজের চারিদিকে চারটি ট্যারেট রয়েছে। পাথরঘাটা শাহী মসজিদের উত্তর দক্ষিণে লম্বা হচ্ছে ৩৪ ফুট। আর পূর্বে পশ্চিমে লম্বা হচ্ছে ২০ ফুট। মসজিদে প্রবেশের জন্য পূর্ব দেয়ালে ৩টি দরজা রয়েছে। ভেতরে দুই কাতারে সেই সময়ে মুসল্লিরা নামাজ আদায় করতো। মসজিদের সামনে একটি বড়সরো পুকুর রয়েছে।

জনশ্রুতি রয়েছে বিশেষ মানতে সেই সময়ে এ পুকুর থেকে বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য বড় বড় পিতলের হাড়ি ভেসে উঠতো। বর্তমানে পাথরঘাটা মসজিদটি একাধিকবার সংস্কার করা হয়েছে। তাতে এ মসজিদের পূর্বের চেহারা আর নেই।

তবে মসজিদের পূর্বের অবকাঠামো ঠিক রেখে পূর্ব দিকে মসজিদের আয়তন মুসল্লি অনুপাতে বড় করে নতুন মসজিদ নির্মাণ করা হয়েছে। এলাকাবাসীর দাবি প্রাচীন এ মসজিদটিকে যেন বাংলাদেশ প্রত্নতত্তের আওতায় যেন নেয়া হয়।

প্রাচীন আমলে পাথরঘাটা শাহী মসজিদটি কুচিয়ামোড়া ধলেশ্বরী নদীর তীরে ছিল। প্রাচীন আমলে নদী পথকে সবচেয়ে গুরুত্ব দেয়া হতো। তাই মোগল আমলে সুবেদার ইসলাম খায়ের সময়ে পাথরঘাটা শাহী মসজিদটি এ জনপদে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে।

মোগল আমলে পাথরঘাটা মসজিদটিকে সামরিক বাহিনীর সেনাছাউনি হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে বলে জনশ্রুতি রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here