মুন্সীগঞ্জে ষষ্ঠদিনের কঠোর লকডাউনে ভিন্ন ভিন্ন রূপ

IMG_9790মোহাম্মদ সেলিম:

মুন্সীগঞ্জে ষষ্ঠদিনের কঠোর লকডাউনের চিত্র একেক জায়গায় একেক রকমের ভাবে দেখা গেছে। কোথাও লকডাউন কড়াকড়ি ভাবে হচ্ছে। কোথায় মধ্যেম আকারে লকডাউন হচ্ছে। আবার কোথায় কোথায় লকডাউন ঢিলাঢালাভাবে হচ্ছে। রকম ফেরের লকডাউনে মানুষ নানাভাবে কষ্ঠ পাচ্ছে।

ছয়দিনের আজ মঙ্গলবারের লকডাউনের চিত্র রিকাবিবাজারের দৃশ্যে ছিল অনেকটা খোলামেলা। এখানকার বাজারের সব দোকানপাট বলতে গেলেই খোলা ছিল। অনেকে সাহস করে দোকান খোলা রেখে বেচা কিনা করেছেন।

যাদের দোকান রাস্তা থেকে ভেতরে তারা খোলামেলা ভাবে ক্রেতা ধরার চেষ্ঠ করেছেন। আর যাদের দোকান রাস্তার সাথে তারা দোকান এক সাটার খুলে রেখে ব্যবসা করার চেষ্ঠা করেছেন। আবার অনেকেই দোকানের সামনে লোক রেখে দোকান চালানোর চেষ্ঠা করেছেন।

IMG_9806এখানে দোকান খোলা রাখার চিত্র ছিল ভিন্ন ভিন্ন রকমের। মোবাইল কোট কিংবা সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেলে দোকান বন্ধ করে দিচ্ছে দোকান মালিকরা।

রিকাবিবাজারে দোকান মালিকরা কোনভাবে লকডাউনের বিধি নিষেধ মানছেন না। নানা অজুহাতে দোকান পাট খুলে রেখেছেন রিকাবিবাজারের ব্যবসায়িরা।

মোবাইল কোট ইতোপূর্বে এখানে অনেককেই সর্তক ও জরিমানা করেছেন। কিন্তু দোকানা খোলা থেকে তারা কোনভাবেই সড়ে আসছে না। এখানে সব ধরণের দোকানপাট প্রতিদিনই খোলা থাকছে।

জোড়পুকুরপাড়ের পেট্রোলপাম্প এলাকা থেকে সিপাহিপাড়া যাওয়ার রাস্তায় ও মুন্সীগঞ্জ শহরে যাওয়ার রাস্তায় চেক পোস্টের চকিতে পুলিশের কড়াকড়ি লক্ষ্য করা গেছে। তবে এখানে একাধিক ভাঙ্গা দিয়ে যানবাহনে যাত্রী চলাচল করতে দেখা যায়।

সিপাহিপাড়াতে অনুরুপ পুলিশের তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে। সিপাহিপাড়ার সব ধরণের মার্কেট আজকের দিনে বন্ধ থাকতে দেখা গেয়ে। তবে মার্কেটের অলিতে গলিতে কিছু দোকানপাট খোলা রাখতে দেখা যায়। সিপাহিপাড়া থেকে মিরাপাড়া এলাকা পর্যন্ত সকল দোকানপাট খোলা ছিল।

মুন্সীগঞ্জ পুরান বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পুলিশের চেক পোস্টের চকিতে ঢিলাঢালাভাবে লক্ষ্য করা গেছে। বাসস্ট্যান্ড থেকে লঞ্চঘাটের দিকে ভাসমান চায়ের দোকান ও খাবার হোটেলের সব দোকান খোলা ছিল।

এসব দোকানে মানুষকে দলবেধে আড্ডা দিতে দেখা যায়। এখানকার মুলধারা হোটেল গুলোতে রাতে হোটেলের ভিতরে বসেই মানুষ খাবার খাচ্ছে প্রতিদিন।

বিকেলের দিকে জোড়পুকুরপাড়ের পেট্রোলপাম্প এলাকা দিয়ে মোবাইল কোটের একটি গাড়ি অতিক্রম করতে দেখা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here