আগামী ৫ আগষ্ট এস.সি পরীক্ষার্থীদের এ্যাসাইনমেন্ট জমা নেয়ার শেষ দিন

mnews-groupগোলাম আশরাফ খান উজ্জ্বল
এ বছর মুন্সীগঞ্জ জেলার এস.এস.সি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের এ্যাসাইনমেন্ট জমা শুরু হয়েছে। জেলায় এ বছর এস.এস.সি, দাখিল ও ভোকেশনাল মিলিয়ে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা হলো ২০ হাজার ৮৮৯ জন।
এর মধ্য থেকে মাধ্যমিক স্কুল হতে ১৮ হাজার ৯৬৬ জন, আলিয়া মাদ্রাসা গুলো হতে দাখিল পরীক্ষায় ১ হাজার ৩০৪ জন ও এস.এস.সি ভোকেশনাল ৬১৯ জন পরীক্ষার্থী এস.এস.সি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করার
কথা। করোনা ভাইরাস মহামারির জন্য দেশের অন্যতম বৃহত্তম পাবলিক পরীক্ষাটি যথা সময়ে অনুষ্ঠিত হতে পারেনি।
বাংলাদেশে প্রতিবছর ফেব্রুয়ারি মাসে এস.এস.সি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। কোভিড-১৯ করোনার উচ্চ সংক্রমণের জন্য এস.এস.সি পরীক্ষা নেয়া শিক্ষা বোর্ডগুলো অনিশ্চয়তায় পড়ে । গত জুলাই মাসে শিক্ষা মন্ত্রী ড. দীপু মনি
এ্যাসাইনমেন্টের মাধ্যমে এস.এস.সি ও সমমানের পরীক্ষা নেয়ার ঘোষণা দেয়ার পর বোর্ডগুলো এ্যাসাইনমেন্ট নেয়ার নির্দেশ দেয় স্কুল গুলোকে। বোর্ড কতৃক সরবরাহকৃত প্রশ্নের মাধ্যমে এ্যাসাইনমেন্ট জমা দেয়া হচ্ছে।
গেল ১৮ জুলাই থেকে এস.এস.সি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের এ্যাসাইনমেন্ট জমা দেয়া শুরু হয়েছে, যা ৫ আগষ্টের মধ্যে স্কুল গুলো ছাত্র -ছাত্রীদের কাছ থেকে জমা নেবে। পরবর্তীতে ১৯ আগষ্ট জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস কতৃক এ সকল তথ্য বোর্ডে জানানো হবে।
মুন্সীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আলাউদ্দিন দেওয়ান বলেন, দীর্ঘ দিন ছাত্র-ছাত্রীরা করোনার কারনে বইয়ের কাছ থেকে দূরে ছিল।
শিক্ষা মন্ত্রী, বোর্ড কতৃপক্ষের এই সিদ্ধান্ত ইতিবাচক ও ভালো দিক। ছাত্র ছাত্রীরা দীর্ঘ দিন পড়ে লেখাপড়ায় মনোযোগ দিতে পেড়েছে।
এ বছর বোর্ড গুলো মানবিক শাখায়- ইতিহাস ও বিশ্বপরিচয়,ভূগোল, পৌরনীতি ও নাগরিকতা। বাণিজ্য শাখায়- হিসাব বিজ্ঞান, ফিনান্স, ব্যাংকিং এবং ব্যবসা উদ্যোগ।
বিজ্ঞান বিভাগে-রসায়ন,পর্দাথ বিজ্ঞান ও জীব বিজ্ঞান এ্যাসাইনমেন্ট ও পরীক্ষা নেবে। সংক্রমণের হার কমে গেলে নভেম্বর মাসে এস.এস.সি পরীক্ষা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
এ বিষয়ে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. ইউনুছ ফারুকী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ছাত্র ছাত্রীরা শিক্ষক বই ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হতে দূরে রয়েছে করোনা ভাইরাসের কারণে। এ্যাসাইনমেন্ট পদ্ধতির মাধ্যমে আবার ছাত্র ছাত্রীরা লেখাপড়া, স্কুল ও শিক্ষকের সান্নিধ্য পেয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এটা ভালো দিক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here