শোক দিবসে উপস্থিত হাইকে নিয়ে মুন্সীগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি গঠন!

IMG-20210930-WA0001মোহাম্মদ সেলিম ও সাগর মাহমুদ:

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের নতুন কমিটি গঠন নিয়ে নেতা ও কর্মীদের মাঝে বিরোধ দেখা দিয়েছে। এই নিয়ে নেতা ও কর্মীদের মাঝে দ্বন্ধ বিরাজ করছে। যে কোন সময় এ নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংর্ঘষ দেখা দিতে পারে বলে জানা গেছে। তৃণমূলের নেতা কর্মীরা এ পকেট কমিটি ও আর্থিক সুবিধা নিয়ে কমিটি গঠনের বিষয় নিয়ে সোচ্চার হচ্ছে।

তাতে ঘোষিত কমিটি অতি শীঘ্রই বাতিল না করা হলে বৃহৎ একটি অংশ এ দল থেকে সরে যেতে পারে বলে আশংকা করছে কেউ কেউ। আবার অনেকে এ আলোচিত কমিটির কারণে দল থেকে নিজকে গুটিয়ে নিস্কৃয় হয়ে যেতে পারে বলে অনেকেই ধারণা করছেন। তাতে যে কারণে এ কমিটি ঘোষণা করা হলো তাতে মাঠ পর্যায়ে তেমনটা আর কাজে লাগবে না বলে অনুমান করা হচ্ছে।

নেতা ও কর্মীরা মনে করে ছিলেন এবারের ঘোষিত কমিটিতে যোগ্য ব্যক্তিদের স্থান হবে কিন্তু তেমনটি হয়নি। আর এসব কারণে সাধরণ নেতা কর্মীদের মাঝে ছোট ছোট পকেট নেতা কর্মীদের মাঝে বিরোধ দেখা দিয়েছে। ইতোমধ্যে স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি থেকে গজারিয়ায় তপন দর্জি পদত্যাগ করেছেন। যা এখন দলের ভিতরে ঠান্ডা লড়াই চলছে।

বর্তমান ঘোষিত কমিটিতে জেলা বিএনপি’র সভাপতি আলহাজ্ব মো: আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান রতনের সমর্থকদের সমন্বয়ে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়। সূত্র এমনটিই আবাস দিচ্ছে। তবে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি ভাই মহিউদ্দিন একটি কমিটির রূপরেখা জমা দিয়ে ছিলেন।

কিন্তু সেটি হালে তেমনটি পানি পায়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। এক নেতা এক কমিটিতে থাকবে এমন ঘোষণা থাকলে এখানে অন্য কমিটির নেতা ও কর্মীরা আর্থিক সুবিধায় বর্তমান কমিটিসহ একাধিক কমিটিতে অনেকেরই স্থান হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বর্তমান কমিটির আহবায়ক হচ্ছেন মো: মিলন ঢালী। তার বাড়ি হচ্ছে মহাকালী ইউনিয়নে। তিনি বিগত দিনে এ কমিটির সভাপতি ছিলেন এক যুগেরও বেশি সময় ধরে। কিন্তু তার বিরুদ্ধে সরকার দলীয় হামলা ও কোনো মামলা নেই। তাতে অনেকেই ধারণা করছেন যে সেই সময়টাতে তিনি সরকার বিরোধী কোনো আন্দোলনে তেমনা সক্রিয় ছিলেন না।

রাজনীতির মাঠে না থাকা ব্যক্তিকে আবারো দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে আসীন করাটা তৃণমূলের নেতা ও কর্মীরা তেমনটা ভালো ভাবে দেখছে না। তবে তিনি জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হাইয়ের সমর্থক বলে জানা গেছে।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান রতনের সমর্থক শামীম ওসমানকে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব ঘোষণা করা হয়েছে। তার বাড়ি হচ্ছে শিলই ইউনিয়নে। তিনি এ কমিটিতে একেবারে নতুন মুখ। বিগত দিনে তিনি রাজপথের আন্দোলন ও মিছিল মিটিংয়ে ছিলেন না বলে অভিযোগ উঠেছে। তিনি ঢাকাতে ব্যবসা বাণিজ্যে নিয়ে সারাক্ষণ ব্যস্ত সময় কাটান।

তাকে প্রধান পদে আসীন করায় তৃণমূল পর্যায়ের নেতা ও কর্মীরা বর্তমানে ক্ষুব্দ। বর্তামানে এ আলোচিত কমিটিতে ঠাই পেয়েছেন মো: হাই ইসলাম। তিনি ১৫ই আগস্টের শোক দিবসের একটি অনুষ্ঠানে নেতা কর্মীদের সাথে অনুষ্ঠানে অংশ নেন। তিনি এ কমিটির সদস্য। তাকে এ কমিটিতে রাখায় আলোচনার সবচেয়ে ঝড় বইছে রাজনীতির ময়দানে।

মুন্সীগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সহ সভাপতি মো: শাকিল এ কমিটির যুগ্ম আহবায়কের পদ পেয়েছেন। এক নেতার এক পদ হিসেবে এটি গঠনতন্ত্রের বিরোধী বলে অভিযোগ উঠেছে। শাহিন মোল্লা জেলা ছাত্রদলের প্রচার সম্পাদক। এখানে তার ঠাই হয়েছে যুগ্ম আহবায়ক। মো: মাহবুব রহমান বাবু এখানে পদ পেয়েছেন যুগ্ম আহবায়ক। রাজনীতিতে তিনি একেবারেই নতুন মুখ। পূর্বে তিনি কোন পদ পদবীতে ছিলেন।

আনকোড়া ব্যক্তিকে গুরুত্বপূর্ণ পদ দিয়ে দলে টানা হয়েছে। মো: রানা দেওয়ান এখানে যুগ্ম আহবায়ক এর পদ পেয়েছেন। রাজনীতি তার আগের কোন ভূমিকা নেই। অনুরূপ অবস্থায় রয়েছেন বর্তমান কমিটির যুগ্ম আহবায়ক মো: আব্দুল মতিন, যুগ্ম আহবায়ক শাহিন মোল্লা, সদস্য মো: আতাউর রহমান, সদস্য দিদার শেখ, সদস্য মো: মঞ্জিল হোসেন বেপারি, সদস্য মো: মোহন প্রধান, সদস্য মো: দেলোয়ার হোসেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here