মহাকালীতে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের হালচাল

013323082948Untitled-1নিজস্ব প্রতিবেদক:

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার দক্ষিণের ইউনিয়ন হচ্ছে মহাকালী। মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার সীমানা শেষ, মহাকালী ইউনিয়ন শুরু। মহাকালীর বেশিরভাগ লোকজনের আসা যাওয়া সবচেয়ে বেশি মুন্সীগঞ্জ শহরে। বাড়িতে নাস্তা খেলেও মুন্সীগঞ্জ শহরে এসে অনেকেই চা খেয়ে দিনের কাজ শুরু করেন।

আর সেই ইউনিয়নের এবারের নির্বাচনে আ’লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী এই মুহূর্তে ৮জন। এই ৮জন জেলা আ’লীগের অফিসে গত ১৬ অক্টোবর নৌকার মাঝি হতে চান এ মর্মে বিগত দিনের রাজনৈতিক কর্মকান্ডে আমলনামাসহ একগুচ্ছ কাগজপত্র জমা দিয়েছেন।

এখানকার দাখিলকৃত কাগজপত্র কেন্দ্রের আ’লীগ অফিসে পাঠিয়ে দিবে জেলা আ’লীগ। কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত অনুযায়ি দাখিলকৃতদের মধ্যে থেকে একজনকে দল মনোনয়ন দিবে। আগামী ২৮ নভেম্বর এই ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

যারা এ ইউনিয়নের আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী তারা হচ্ছেন হাজী শহিদুল ইসলাম, জি.এম.মনসুর উদ্দিন, ফারুক আহম্মেদ পিন্টু, শাহ আলম, নজরুল ইসলাম বেপারি, বুলবুল আহম্মেদ সুমন, জিয়াউল হাসান বিরিন ও মনির হোসেন সাগর।

হাজি শহিদুল ইসলাম মহাকালী ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি। গত নির্বাচনের সময়ে তিনি এখানে নৌকার মনোনয়ন পান। তবে তিনি জয়লাভ করতে পারেননি। এখানে বিজয়ী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা রিয়াজুল ইসলাম বিরাজ।

মহকালী ইউনিয়নে বিএনপি’র বিশাল ভোট ব্যাংক রয়েছে। গত নির্বাচনে এখানে বিএনপি’র কোন প্রার্থী অংশ নেয়নি। যার কারণে তাদের বেশির ভাগ ভোট বিরাজের ভোট বাক্সে গেছে বলে এখানকার ভোটাররা মনে করে।

এছাড়া এখানে হাজি শহিদুল ইসলামকে প্রার্থী করায় আ’লীগের একটি পক্ষ ভোটের রাজনীতিতে নিরব ভূমিকা পালন করে। যার কারণে এখানে আ’লীগের ঐ প্রার্থী বিজয় লাভ করতে পারেননি বলে স্থানীয়ভাবে অভিযোগ উঠেছে।

কেন্দ্রীয় আ’লীগ তৃণমূলে আ’লীগের রাজনীতি বিকেন্দ্রীয় করার লক্ষ্যে একজনকে এক পদে রাখায় কাজ করে যাচ্ছে। সেই হিসেবে হাজি শহিদুল ইসলামের মনোনয়ন পাওয়া এ মুহূর্তে ফিফট্টিতে ফিফট্টিতে এসে দাঁড়িয়েছে। ভাগ্য সুপ্রশন্ন হলে তিনিই এবার আ’লীগের মনোনয়ন পেলোও পেয়ে যেতে পারেন। তবে এবারের নির্বাচনে তাকে আবারো মুখোমুখি হতে হবে সেই বিরাজের সাথে।

এবারের নির্বাচনে আ’লীগের মনোনয়ন দৌড়ে হাজী শহিদুল ইসলামের পরে রয়েছেন আরো দুইজন ব্যক্তি। তারা হচ্ছেন সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জি.এম. মনসুর উদ্দিন ও আ’লীগ নেতা ফারুক আহম্মেদ পিন্টু। ত্রিমুখি মনোনয়ন দৌড়ে এবার কে মনোনয়ন পায় তা নিয়ে নানা রকমের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।

এ তিনজনের থেকে একজন লাকি ম্যান হিসেবে মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এবারের নির্বাচনে নতুন মুখ হিসেবে আ’লীগ একজন শক্ত প্রার্থী ঘোষণা দিতে পারে বলে গুঞ্জন জোরালো হচ্ছে।

এবারের নির্বাচনে মহাকালী ইউনিয়নের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হাসান বিরিন জেলা দপ্তওে কাগজপত্র জমা দিয়েছেন। তবে তিনি গতবারের নির্বাচনে আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেন।

তবে শেষ পর্যন্ত জেলা আ’লীগের অনুরোধে তিনি নির্বাচন থেকে সরে আসেন। এবারের নির্বাচনে যারা যারা মনোনয়ন প্রত্যাশী তাদের মধ্যে বুলবুল আহম্মেদ সুমন বয়সের দিক দিয়ে সবার ছোট বলে জানা গেছে। হরগংগা কলেজে ছাত্রলীগের রাজনীতির মধ্যে দিয়ে তার পথ চলা শুরু।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here